সর্বশেষ খবর

   ‘মৃত শিশুর মাতৃত্ব নিয়ে সন্দেহ’ তদন্ত কমিটি গঠন    শুটিং না করেও টিজারে মুনমুন, পরিচালক বলছেন ভিন্ন কথা    বিশ্ব একাদশের হয়ে খেলবেন সাকিব-তামিম    বিয়ানীবাজারে জেনোসিডিল সহ যুবক আটক    বজ্রপাতের সময়ে যেসব বিষয়ে সতর্ক থাকতে হয়    এবার গোপালগঞ্জে বাসচাপায় এক নারী নিহত    সিকৃবিতে ‘সেলফ এসেসমেন্ট’ কমিটির কর্মশালা অনুষ্ঠিত    প্রভাষক জুয়েল হত্যার প্রতিবাদে সিলেটে মানববন্ধন    সিলেটে মশা নিধনে কার্যকর পদক্ষেপের দাবি    রাজনগরে গৃহবধূ খুন    বাংলাদেশ লোকসংস্কৃতি ফোরাম এর সিলেট বিভাগীয় প্রতিনিধি অসিত বরণ    ধোপাদিঘীর ‘ক্ষতি নয়,সৌন্দর্যবর্ধন করছে’ সিসিক    সিলেট চেম্বারে এসএমই উদ্যোক্তাদের ব্যবসা বিকাশে ই-কমার্স শীর্ষক সেমিনার    সুনামগঞ্জে ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক    শাবিতে আসছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান    কাবুলে জঙ্গি হামলা, নিহত বেড়ে ৬৩    পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে তারেকের লিগ্যাল নোটিশ    বিএনপির মিছিলে পুলিশি বাধা    জাতীয় পার্টিতে বিএনপির অনেক নেতাই যোগ দেবে: এরশাদ    সংবাদ সম্মেলনে রিজভী তারেক রহমান পাসপোর্ট জমা দিলে সবাইকে দেখান


খবর - অর্থনীতি

সিলেট চেম্বারে এসএমই উদ্যোক্তাদের ব্যবসা বিকাশে ই-কমার্স শীর্ষক সেমিনার

এসএমই ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ও দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র সহযোগিতায় “ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পোদ্যোক্তাদের ব্যবসা বিকাশে ই-কমার্সের ব্যবহার” শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার সকাল ১১টায় চেম্বার কনফারেন্স হলে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

সিলেট চেম্বারের সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদের সভাপতিত্বে সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- সিলেট রেঞ্জ এর ডিআইজি মোঃ কামরুল আহসান, বিপিএম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- এসএমই ফাউন্ডেশনের ডিজিএম আব্দুস সালাম সরদার।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডিআইজি বলেন, বাংলাদেশে অল্প কয়েকবছর আগে ই-কমার্সের যাত্রা শুরু হলেও বিশ্বের অন্যান্য দেশে ই-কমার্স ব্যবসা-বাণিজ্যের একটি অত্যন্ত জনপ্রিয় বিস্তারিত

‘সিলেট-মালয়েশিয়া ফ্লাইট চালুর করবে এয়ার এশিয়া’

সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে মালয়েশিয়ার সাথে সরাসরি ফ্লাইট চালু করবে বেসরকারি এয়ারলাইন্স সংস্থা এয়ার এশিয়া। একই সাথে বিশ্বের বিভিন্ন রোডে বিমান চলাচলের পরিকল্পনাও রয়েছে বিমান সংস্থাটির। রোববার সিলেটে এয়ার এশিয়া অফিস উদ্বোধনে এসে এমনটি জানিয়েছেন এয়ার এশিয়ার এক্সিকিউটিভ চেয়ারম্যান দাতুক কামারুদিন মিরানুন।

নগরীর জেল রোডস্থ আনন্দ টাওয়ারের দ্বিতীয় তলায় অবস্থিত এয়ার এশিয়ার সিলেট অফিসে অতিথিদের স্বাগত জানান বিমান সংস্থাটির সিলেট প্যাসেঞ্জার সেল্স এজেন্ট (পিএসএ) খন্দকার সিপার আহমদ। এসময় প্রধান অতিথিকে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান সিপার এয়ার সার্ভিসের পরিচালক খন্দকার কাওসার আহমদ রবি।

আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন শেষে এয়ার এশিয়ার এক্সিকিউটিভ চেয়ারম্যান দাতুক কামারুদিন বলেন, বাংলাদেশে এয়ার এশিয়ার ব্যবসা সফলভাবে পরিচালিত হচ্ছে। এর পরিধি আরো বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে। ইতিমধ্যে আমি চট্টগ্রাম এবং সিলেট সফর করছি। এই দুই নগরী থেকেও এয়ার এশিয়ার ফ্লাইট চালুর সম্ভাবনা যাচাই করছি।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সিলেট খুবই উন্নত ও সমৃদ্ধ শহর। সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিভিন্ন গন্তব্যে বিশেষ করে মালয়েশিয়া-সিলেট ফ্লাইট আগামীতে চালুর পরিকল্পনা করছি। তিনি জানান, সর্বনি¤œ ভাড়ায় বর্তমানে বিশ্বের শতাধিক গন্তব্যে এয়ার এশিয়ার ফ্লাইট চলাচল করছে।

এয়ার এশিয়ার সিলেট পিএসএ’র দায়িত্ব পেয়েছেন সিপার এয়ার সার্ভিসের স্বত্বাধিকারী, সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এয়ার এশিয়া’র বাংলাদেশ জিএসএ’র চেয়ারম্যান কে এম মজিবুল হক, ভাইস চেয়ারম্যান শেখ মামুনুল হক ও সিইও মোর্শেদুল আলম চাকলাদার।

উল্লেখ্য, সিলেট পিএসএ অফিস উদ্বোধনের জন্য এয়ার এশিয়ার এক্সিকিউটিভ চেয়ারম্যান দাতুক কামারুদিন তার পরিবারসহ নিজস্ব জেট বিমানে মালয়েশিয়া থেকে সরাসরি সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান। সিলেট অফিস উদ্বোধনের পূর্বে তিনি হযরত শাহ্জালাল (রহঃ) এর মাজার জিয়ারত করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, সিটি কাউন্সিলর আব্দুল মুহিত জাবেদ, আটাব সিলেটের সভাপতি আব্দুল জব্বার জলিল, সিলেট স্টেশন ক্লাবের সভাপতি এডভোকেট এমাদ উল্লাহ শহিদুল ইসলাম, সিলেট চেম্বারের পরিচালক মোঃ হিজকিল গুলজার, আব্দুর রহমান, সিলেট ওমেন্স চেম্বারের সভাপতি স্বর্ণলতা রায়, এস আর ক্যাপিটালের ডাইরেক্টর সিদ্দিকুর রহমান, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোঃ আলী আকিক, আতাউর রহমান, সিনিয়র সাংবাদিক আল-আজাদ, ওকাস সভাপতি খালেদ আহমদ, সাংবাদিক এডভোকেট তাজ উদ্দিন, প্রমুখ।

বিস্তারিত

চামড়া শিল্পনগরীর জন্য কর অবকাশ দাবি

সাভারে স্থানান্তরিত চামড়া শিল্পনগরীর জন্য আগামী ৭ থেকে ১০ বছরের জন্য কর অবকাশের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশন।

রোববার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) প্রধান কার্যালয়ে প্রাক-বাজেট আলোচনায় বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মো. শাহীন আহমেদ এ দাবি জানান।

মো. শাহীন আহমেদ বলেন, জাতীয় অর্থনীতিতে চামড়া উদীয়মান রপ্তানিমুখী শ্রমঘন খাত। পরিবেশবান্ধব চামড়া শিল্পনগরী গড়ে তোলার লক্ষ্যে ট্যানারি শিল্পপ্রতিষ্ঠান হাজারীবাগ থেকে চামড়া শিল্পনগরীতে স্থানান্তরিত হয়েছে। ২০০ একর জমিতে এরই মধ্যে ১৫৫টি ট্যানারি শিল্পকারখানা স্থানান্তরিত হয়েছে। ১০২টি প্রতিষ্ঠান উৎপাদন শুরু করেছে। ট্যানারি মালিকগণ এখানে ১০ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে। তাই এখানে শিল্পনগরীর জন্য আগামী ৭ থেকে ১০ বছরের জন্য কর অবকাশ (করমুক্ত) সুবিধা দরকার।

আলোচনায় সভায় মো. শাহীন আহমেদের বন্ড সুবিধাবঞ্চিত ট্যানারি শিল্পের জন্য বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

তিনি বলেন, ১৫৫টি ট্যানারির মধ্যে ৩০টি ট্যানারি বন্ড সুবিধা পায়। বাকিরাও যাতে এই সুবিধা পায় সেজন্য এনবআরকে উদ্যোগী হতে হবে। ওই সকল প্রতিষ্ঠানও বিদেশে চামড়াজাত পণ্য রপ্তানি করে থাকে। কিন্তু কাঠামোগত ও আর্থিক সক্ষমতা কম থাকায় বন্ড সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

এর জবাবে এনবিআর চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন বলেন, বন্ড সুবিধাবঞ্চিত প্রতিষ্ঠানগুলোর বিষয়ে আমরা বিবেচনা করব, যাতে ন্যূনতম শর্ত পূরণ করলেই তাদের ওই সুবিধা দেওয়া হয়।

এছাড়া বাজেট প্রস্তাবে শতভাগ রপ্তানিমুখী চামড়া খাতকে উৎসে কর বা মূল্য সংযোজন করের (মূসক) আওতামুক্ত রাখা, সাভার চামড়া শিল্পনগরীকে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল ঘোষণাসহ বেশকিছু দাবি তুলে ধরা হয়।

প্রাক-বাজেট আলোচনা সভায় ফিড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মসিউর রহমান পোল্ট্রি ফিডের কাঁচামাল সয়াবিন মিল আমদানির ওপর ১০ শতাংশ রেগুলেটরি ডিউটি মওকুফ করার দাবি জানান। এর জবাবে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, আসছে বাজেটে পোল্ট্রি খাতে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হবে।

অ্যাগ্রিকালচার মেশিনারি ম্যানু্ফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আলীমুল এহছান চৌধুরী বলেন, অ্যাগ্রিকালচার মেশিনারি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানগুলো কৃষিভিত্তিক শিল্প হিসেবে গণ্য না হওয়ায় ব্যাংক ঋণপ্রাপ্তির ক্ষেত্রে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। তাই এই শিল্পকে কৃষিভিত্তিক শিল্প হিসেবে গণ্য করতে হবে।

বাংলাদেশ অ্যাগ্রো-প্রসেসরস অ্যাসোসিয়েশনের (বাপা) সভাপতি এ এফ এম ফখরুল ইসলাম মুন্সী কৃষিশিল্পের ক্ষেত্রে করপোরেট ট্যাক্স ১৫ শতাংশ করার দাবি জানান। এছাড়া তিনি বাৎসরিক টার্নওভারের ওপর আয়কর সম্পূর্ণ অব্যাহতির দাবি জানান।

এছাড়া বাংলাদেশ সিড অ্যাসোসিয়েশন থেকে তরমুজ ও বাঙ্গির বীজ আমদানির ওপর ট্যাক্স প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়। এর জবাবে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, কৃষিজাত পণ্যের বীজ আমদানির ক্ষেত্রে সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হবে।

অন্যদিকে বাংলাদেশ ব্রেড, বিস্কুট ও কনফেকশনারী প্রস্তুতকারক সমিতির পক্ষ থেকে তৈরি বিস্কুট, পাউরুটি, বনরুটিসহ সব ধরনের বিস্কুটে কর অব্যাহতি দেওয়ার দাবি করা হয়। এ বিষয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, এই খাতে ভ্যাট কমানোর বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

প্রাক-বাজেট আলোচনায় এনবিআরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং কৃষি, পোল্ট্রি, তেল, গ্যাস, খাদ্য ও পানীয় খাতের বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
বিস্তারিত

‘সব ক্ষেত্রে কর হার শূন্য করা সম্ভব না’

সব ক্ষেত্রে করের হার শূন্য করা সম্ভব হবে না, তবে যে দাবিগুলো উঠেছে তা বিবেচনা করা যেতে পারে- এ কথা বলেছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া।

কৃষি ও পোল্ট্রি, তেল, গ্যাস, খাদ্য ও পানীয়, কেমিক্যালস, পেইন্ট বার্নিশ, চামড়া, কসমেটিকস ও টয়লেট্রিজ খাতের সংগঠনগুলোর নেতাদের সঙ্গে রোববার এনবিআরের প্রধান কার্যালয়ে প্রাক-বাজেট আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ‘সব ক্ষেত্রে করের হার শূন্য করা সম্ভব হবে না। তবে আপনাদের দাবিগুলো বিবেচনা করা যেতে পারে। আমাদের দেশে করপোরেট করের হারে বেশি- এ বিষয়টি নিয়ে বেশ সমালোচনা করা হচ্ছে। তাই এবারে করপোরেট কর কমানোর বিষয়টি বিবেচনা করছি। কিন্তু বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে বাড়তি সুবিধা দিতে গেলে আবার করপোরেট কর কমানো কঠিন হয়ে যাবে। এখন দেখা যাক কী করা যায়।’

কৃষি ভিত্তিক সমিতিগুলোর কর সুবিধা দাবির পরিপ্রেক্ষিতে তিনি বলেন, ‘এগ্রো বেইজড খাতগুলোকে আমরা অগ্রাধিকার দিতে চাই। তবে এসব খাত সংশ্লিষ্টদের উচিত এগ্রোবেইজড শিল্পের প্রতি বেশি নজর দেওয়া। কারণ, আমাদের দেশে কর্মসংস্থান একটি বড় বিষয় আর সেটি আমাদের দেখতে হবে।’

আলোচনা সভায় বাংলাদেশ ট্যানারি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মো. শাহীন আহমেদ বন্ড সুবিধা বঞ্চিত ট্যানারি শিল্পের প্রতি বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

এর জবাবে এনবিআর চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘বন্ড সুবিধা বঞ্চিত প্রতিষ্ঠানগুলোর বিষয়ে আমরা বিবেচনা করব। যাতে নূন্যতম শর্ত পূরণ করলেই তাদের ওই সুবিধা দেওয়া যায়।’

প্রাক-বাজেট আলোচনায় এনবিআর-এর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং কৃষি, পোল্ট্রি, তেল, গ্যাস, খাদ্য ও পানীয় খাতের বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
বিস্তারিত

বোতলজাত সয়াবিন তেল লিটারে বেড়েছে ২ টাকা

এক মাসের ব্যবধানে খুচরা বাজারে বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম প্রতি লিটারে বেড়েছে ২ টাকা। তবে অপরিবর্তিত আছে খোলা তেলের দাম। খুচরা বাজারে বর্তমান খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ৮৮ টাকা প্রতি লিটার। পাম অয়েল বিক্রি হচ্ছে প্রতি লিটার ৭০ থেকে ৭২ টাকায়।
সয়াবিন তেলের দাম বাড়ার বিষয়ে খুচারা ব্যবসায়ীরা জানান, আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কম থাকার পরও দেশের বাজারে বোতলজাত সয়াবিন তেলের মূল্যবৃদ্ধির পেছনের কারণ হলো কোম্পানিগুলোর বিশেষ সুবিধা তুলে নেওয়া।

ব্যবসায়ীরা বলেন, আগে বোতলজাত সয়াবিন তেলের ক্ষেত্রে রূপচাঁদা, তীর, পুষ্টি প্রভৃতি ব্র্যান্ড বিশেষ ছাড় দিত। যেমন ৫ হাজার টাকার রূপচাঁদা ব্র্যান্ডের সয়াবিন তেল কিনলে ১ কেজি বাসমতি চাল বিনামূল্যে দেওয়া হতো। তীর ব্র্যান্ডের তেলের প্রতি কার্টনে ২০ টাকা ছাড় বা চার কার্টন তেল কিনলে ২ লিটার তেল ফ্রি দেওয়া হতো। ৫ হাজার টাকার পুষ্টি ব্র্যান্ডের বোতলজাত সয়াবিন তেল কিনলেই চার লিটার তেল বিনামূল্যে দেওয়া হতো। কিন্তু এখন এসব সুযোগ-সুবিধা তারা বন্ধ করে দিয়েছে। এজন্য আমাদেরকেও বাধ্য হয়ে বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে।

পুষ্টি ও ফ্রেশ ব্র্যান্ডের বোতলজাত সয়াবিন তেলের ক্ষেত্রেও একইভাবে ১০ টাকা বেড়েছে প্রতি ৫ লিটারের বোতলে। গত মাসে এসব ব্র্যান্ডের বোতলজাত সয়াবিন তেল (৫ লিটার) বিক্রি হতো ৫২০ ও ৫৩০ টাকায়। বর্তমানে এর দাম বোতলপ্রতি ১০ টাকা বেড়ে ৫৩০ ও ৫৪০ টাকায় দাঁড়িয়েছে। একই হারে বাড়ানো হয়েছে সয়াবিন তেলের এক, দুই ও আট লিটারের বোতলের দামও।


তবে এসব কোম্পানির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানো হয়নি। মিলগেটে এসব প্রতিষ্ঠান আগের দামেই ভোজ্যতেল বিক্রি করছে। তবে এতদিন পরিবেশকদের বাড়তি যে সুবিধাগুলো দেওয়া হতো তা আর দেওয়া হচ্ছে না। আর বাড়তি সুবিধা তুলে নেওয়ার কারণেই পরিবেশক ও পাইকারি ব্যবসায়ীরা বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম বাড়িয়ে থাকতে পারেন।
বিস্তারিত

জাতীয় বাজেট সামনে রেখে ব্যবসায়ীদের সাথে সিলেট চেম্বারের মতবিনিময়

আগামী ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটকে সামনে রেখে সিলেট অঞ্চলের ব্যবসায়ীদের সাথে  মতবিনিময় করেছে  সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি। বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৪টায় চেম্বারের কনফারেন্স হলে এই মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়। চেম্বারের সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন প্রস্তাব ও সুপারিশ তুলে ধরেন।

মতবিনিময় সভায় বক্তারা করমুক্ত আয়ের সীমা ২ লক্ষ ৫০ হাজার থেকে বাড়িয়ে ৩ লক্ষ ৫০ হাজার করা, করদাতার নীট সম্পদ ৫ কোটি টাকা পর্যন্ত সারচার্জ মওকুফ এবং ৫ কোটি টাকার অধিকে হলে ৫% সারচার্জ আরোপ করা, আয়কর রিটার্ন দাখিল ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে নিষ্পত্তি করে করদাতাকে ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট প্রদান করা, কৃষি যন্ত্রপাতি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানের অর্জিত লভ্যাংশের উপর বিদ্যমান কর হ্রাস করে ১০% নির্ধারণ করা, ব্যাংক ঋণ ও সুবিধাদি সহজে পাওয়ার লক্ষ্যে কৃষি যন্ত্রপাতি প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান সমূহকে কৃষিভিত্তিক শিল্প হিসেবে গণ্য করা, ভোগ্যপণ্য পরিবেশকদের উপর ভ্যাট আরোপ না করে উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে উৎসে কর আদায় করা, কয়লা আমদানীকারকগণ অগ্রিম ভ্যাট জমা দিয়ে কয়লা আমদানী করেন বিধায় কয়লা বিক্রয়ের উপর ৪% অগ্রিম ভ্যাট বা এটিভি প্রদানের বিধান বাতিল করাসহ বিভিন্ন প্রস্তাব তুলে ধরেন।

এছাড়াও যেসব সার্জিক্যাল আইটেম ও মেডিক্যাল ইকুইপমেন্টের উপর ভ্যাট গ্রহণের বিধান নেই, সেসকল পণ্যের উপর ভ্যাট আরোপ না করা এবং ভ্যাট ট্যাক্স এর আওতা বৃদ্ধি করার অনুরোধ জানান ব্যবসায়ীরা।

সভাপতির বক্তব্যে চেম্বার সভাপতি বলেন, ‘সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি প্রতিবছর জাতীয় বাজেটে প্রস্তাবনা প্রেরণ করে থাকে। এসব প্রস্তাবনায় সিলেটের প্রেক্ষাপট এবং এ অঞ্চলের ব্যবসায়ীদের সুবিধা-অসুবিধা বিবেচনা করে প্রস্তাব বা সুপারিশ অন্তর্ভুক্ত করা হয়। আগামী ১২ মে সিলেটে বিভাগীয় পর্যায়ের একটি প্রাক-বাজেট আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। ওই সভায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।’ ওই সভায় আলোচনার জন্য ব্যবসায়ীদের যেসব দাবি দাওয়া রয়েছে তা লিখিতভাবে চেম্বার কার্যালয়ে জমা দেওয়ার অনুরোধ জানান তিনি।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিলেট চেম্বারের সিনিয়র সহ-সভাপতি মাসুদ আহমদ চৌধুরী, সহ সভাপতি মো. এমদাদ হোসেন, পরিচালক এবং ভ্যাট, বাজেট, শুল্ক, কর ও ট্যারিফ সাব কমিটির আহবায়ক মো. হিজকিল গুলজার, পরিচালক জিয়াউল হক, আমিরুজ্জামান চৌধুরী, চন্দন সাহা, মুজিবুর রহমান মিন্টু, সিলেট জেলা সিএন্ডএফ এজেন্ট গ্রুপের সভাপতি শাহ্ আলম, সিলেট বিভাগ গণদাবী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক এম শফিকুর রহমান, সিলেট জেলা রড সিমেন্ট ঢেউটিন মার্চেন্ট গ্রুপের সভাপতি মো. মজলু মিয়া, ব্যবসায়ী জুবায়ের রকিব চৌধুরী, ডা. সৈয়দ মোহাম্মদ খসরু, মো. আমিনুজ্জামান জোয়াহির, মো. আনোয়ার হোসেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট চেম্বারের পরিচালক পিন্টু চক্রবর্তী, মুশফিক জায়গীরদার, মুকির হোসেন চৌধুরী, আলহাজ্ব মো. আতিক হোসেন, প্রাক্তন পরিচালক মো. বশিরুল হক, ব্যবসায়ী নুর মো. আদনান, মো. মঞ্জুর আল বাছেত, এম শহিদুল ইসলাম, শেখ মো. আজাদ, ভানু চন্দ্র পাল, কামরুল ইসলাম কামরুল প্রমুখ।

বিস্তারিত

কর দিতে হবে সিনএনজি অটোরিকশা মালিকদের

সিএনজি চালিত অটোরিকশা মালিকদের করের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় এনবিআরের সম্মেলন কক্ষে প্রাক-বাজেট আলোচনায় সিএনজি চালিত অটোরিকশা মালিকদের সংগঠনটির প্রস্তাবের জবাবে এ কথা বলেন তিনি। সভায় উপস্থিত ছিলেন এনবিআর'র সদস্যসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ী সংগঠনের প্রতিনিধিরা।

এনবিআরের চেয়ারম্যানের প্রশ্নের জবাবে সিএনজি মালিকদের সংগঠন ফোর স্ট্রোক সিএনজি চালিত অটোরিকশা অ্যান্ড থ্রি হুইলার্স মোটরবাইক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট আসলাম আলী বলেন, বর্তমানে ঢাকায় ২০ হাজার সিএনজিচালিত অটোরিকশা রয়েছে। লিখিত প্রস্তাবনায় বলা হয় সিএনজির মালিক ও চালকদের বাধ্যতামূলক এ্যাসোসিয়েশনের সদস্য হতে হবে। সনদপত্রও থাকতে হবে। পাশাপাশি অ্যাপসের মাধ্যমে অটোরিকশা চালাতে হবে।

সংগঠনের নেতার দাবি পরিপ্রেক্ষিতে তিনি বলেন, বাংলাদেশে উবার, পাঠাও এর মতো সার্ভিসগুলো বাজারে এসেছে। এখানে পুরনো পদ্ধতিতে সিএনজি চালালে ব্যবসা নষ্ট হবে। আপনাদের অ্যাপস ভিত্তিকের আওতায় আসতে হবে উল্লেখ করে চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, বাজেটে সিএনজি মালিকদের ট্রেড লাইসেন্স ও ই-টিআইএন বাধ্যতামূলক করা হবে। সিএনজি মালিকদের করে আওতায় আনা হবে।
বিস্তারিত

কমনওয়েলথ বাণিজ্য প্রসারে ৭ দফা প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আন্তঃকমনওয়েলথ ব্যবসা, বিনিয়োগ ও উদ্ভাবনার উন্নয়নের জন্য সাত দফা প্রস্তাব উত্থাপন করেছেন। তিনি বাণিজ্য প্রশাসন আরো উন্মুক্ত ও স্বচ্ছ করে তুলতে কমনওয়েলথ দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানান।

বুধবার লন্ডনে ‘কমনওয়েলথ’স রোল ইন প্রমোটিং ট্রেড, ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড ইনোভেশন’ শীর্ষক এক বৈঠকে  ওই প্রস্তাব উত্থাপন করে এ আহবান জানান প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, আমরা অবশ্যই বাণিজ্য প্রশাসন উন্মুক্ত, আইন ভিত্তিক, স্বচ্ছ, অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং ন্যায্যতা নিশ্চিত করবো। তিনি বলেন, আন্তঃকমনওয়েলথ বাণিজ্য, বিনিয়োগ এবং উদ্ভাবনার লক্ষ্যে দেশগুলোকে অবশ্যই অভিন্ন সুযোগ-সুবিধা জোরদার করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী এ লক্ষ্যে সাত দফা প্রস্তাব উত্থাপন করেন। এগুলো হলো-

১. সদস্য রাষ্ট্রগুলোর শিল্প সম্ভাবনা ও উৎপাদনশীলতার খাত ভিত্তিক সমীক্ষা প্রয়োজন।
২. ছড়িয়ে থাকা বিনিয়োগ সম্ভাবনাসহ অভিন্ন বিনিয়োগ নীতি, নির্দেশনা ও কৌশল গ্রহণ।
৩. বাণিজ্য সহায়ক সুযোগ-সুবিধার উন্নয়ন এবং পিটিএ ও এফটিএ’র অশুল্ক বাধা কমিয়ে আনা।
৪. সেবা বাণিজ্যের জন্য উদারশাসন এবং স্বতন্ত্র পেশার সেবা সুবিধার জন্য খোলাবাজার চালু।
৫. প্রকৃত ব্যবসায়ীদের জন্য সহজ যাতায়াত এবং সরকারি ও বেসরকারি ক্যাটাগরিতে নির্দিষ্ট লোকদের জন্য ভিসা সহজীকরণ।
৬. অবকাঠামো এবং যোগাযোগ প্রকল্প গ্রহণ।
৭. এসএমই এবং ব্লু ইকোনমি খাতসহ উৎকৃষ্ট কেন্দ্র এবং প্রতিষ্ঠানের সহায়তা এবং উন্নয়ন, আরএন্ডডি, প্রযুক্তি হস্তান্তর ও সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য তহবিল গঠন।

কমনওয়েলথ ভুক্ত দেশগুলোর জনসংখ্যার ৬০ শতাংশের বয়স ৩০ বছরের নিচে, তাদেরকে বৃহত্তম সম্পদ হিসেবে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, আন্তঃকমনওয়েলথ বাণিজ্য, বিনিয়োগ এবং উদ্ভাবনা শক্তির পরিচালনায় কমনওয়েলথকে অবশ্যই এই বিপুল মেধাবীদের কাজে লাগাতে হবে।

তিনি বলেন, এ জন্য আমাদের অবশ্যই প্রবৃদ্ধি ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যসমূহ অর্জন করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্ব বাণিজ্যে টানা পোড়েন, বহুপাক্ষিক বাণিজ্য ব্যবস্থায় হুমকি এবং অর্থবাজারে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়ায় কমনওয়েলথ কিভাবে বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও উদ্ভাবনার উন্নয়নে ইতিবাচক শক্তি হিসেবে আবির্ভূত হতে পারে সেটি এখন অধিক গুরুত্বপূর্ণ।

শেখ হাসিনা উল্লেখ করেন যে, বর্তমানে আন্তঃকমনওয়েলথ বাণিজ্যের অনুমিত পরিমাণ ৬০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের সামান্য বেশি।

তিনি বলেন, বিশ্বের জিডিপিতে কমনওয়েলথভুক্ত ৫৩টি দেশের অবদান ১৬ শতাংশ, অন্যদিকে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের ২৮টি দেশের এই অবদান ১৯ শতাংশ।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০১৩ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে কমনওয়েলথ দেশগুলোর সম্মিলিত জিডিপি’র হার ৪ দশমিক ১ শতাংশ, এই তুলনায় ইইউ’র জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার ১ দশমিক ৮ শতাংশ এবং যুক্তরাষ্ট্রের প্রবৃদ্ধির হার ২ দশমিক ৬ শতাংশ।

তিনি বলেন, আরো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো কমনওয়েলথ দেশগুলোর জনসংখ্যা ২শ’ কোটির বেশি, যা ইইউ’র ৪ গুণ। এই হিসেব থেকে কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর ব্যবসা ও বিনিয়োগের বিপুল সম্ভাবনা বোঝা যায়।

শেখ হাসিনা বলেন, তিনি এটি দেখে খুশী যে গতবছর প্রথমবারের মতো কমনওয়েলথ বাণিজ্য মন্ত্রীদের বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল। এ সময়ে মন্ত্রীরা অভিন্ন সংস্কৃতিকে ‘কমনওয়েলথ ফ্যাক্টর’ হিসেবে আলোচনা করেন যা কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে নেই এমন দেশের তুলনায় কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর ব্যবসা-বাণিজ্যকে ২০ শতাংশ সাশ্রয়ী করেছে।

তথ্যসূত্র : বাসস
বিস্তারিত

জাতীয় বাজেট সম্পর্কে চেম্বারের মতবিনিময় বৃহস্পতিবার

আগামী ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটকে সামনে রেখে ব্যবসায়ীদের সাথে মতবিনিময়ের উদ্যোগ নিয়েছে দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ৪টায় চেম্বার বোর্ড রুমে এ মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হবে। মতবিনিময় সভায় বাজেট সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান/সংগঠনের প্রস্তাবনা লিখিত আকারে নিয়ে আসতে অনুরোধ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, আমন্ত্রণপত্রে সভার সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৪টা উল্লেখ করা হয়েছিল। অনিবার্যকারণে সভার সময়সূচি বিকাল সাড়ে ৪টায় স্থানান্তর করা হয়েছে।

বিস্তারিত

টোয়াবের আয়োজনে আজ থেকে শুরু হচ্ছে পর্যটন মেলা

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আজ ১৯ এপ্রিল শুরু হচ্ছে ৮ম বিমান বাংলাদেশ ট্র্যাভেল এন্ড ট্যুরিজম ফেয়ার (বিটিটিএফ)। ট্যুর অপারেটর এসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (টোয়াব) এর আয়োজনে এ মেলা চলবে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত।

১৯ এপ্রিল সকালে এ মেলা উদ্বোধন করবেন বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী একেএম শাহজাহান কামাল।

মঙ্গলবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের সিইও ড. মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘ভুটান, নেপাল, থাইল্যান্ড, চীন, কম্বোডিয়া, শ্রীলংকা, মালদ্বীপ, ভিয়েতনাম, দুবাইয়ের প্রতিষ্ঠান এ মেলায় অংশ নিচ্ছে। আরো অংশ নিচ্ছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, উড়িষ্যা, কাশ্মীর ও ত্রিপুরার প্রতিষ্ঠান। মেলায় মোট ১৬০টি স্টল থাকবে।’

মেলায় বাংলাদেশের পর্যটন সম্ভাবনা, ইতিহাস-ঐতিহ্য, মুক্তিযুদ্ধ ও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে একাধিক সেশন থাকছে। মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে। এ মেলা সবার জন্য উন্মুক্ত।
বিস্তারিত

ব্যাংক খাত এতিম অবস্থায় রয়েছে : সিপিডি

ব্যাংক খাতে চরম বিশৃঙ্খলা বিরাজ করছে, এ খাত বর্তমানে এতিম অবস্থায় রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সিপিডির ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য।

মঙ্গলবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে জাতীয় বাজেট ২০১৭-১৮ উপলক্ষে সিপিডির সুপারিশমালা শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ড. দেবপ্রিয় বলেন, দেশ এখন কর্মসংস্থানহীন, প্রবৃদ্ধির ধারা থেকে বেরিয়ে আয়হীন কর্মসংস্থানের দিকে এগুচ্ছে। কিন্তু ব্যাংকের রক্ষকরাই ভক্ষক হিসেবে কাজ করছে। ফলে আমাদের অর্থনীতি এখন একটা ভ্রমের মধ্যে রয়েছে। এমন অবস্থায় চলতি অর্থবছর শেষে রাজস্ব ঘাটতি দাঁড়াবে ৫০ হাজার কোটি টাকা।

তিনি বলেন, প্রবৃদ্ধি, উৎপাদন, কর্মসংস্থান ও আয় এই চারটির মধ্য সামঞ্জস্য আছে কি না দেখতে হবে। সামঞ্জস্য না থাকলে বুঝতে হবে সমস্যা আছে। আমরা দেখছি দেশে কর্মসংস্থান বাড়লেও আয় কমছে। অর্থাৎ দেশ আয়হীন কর্মসংস্থানে পরিণত হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, মুদ্রানীতিতে ঋণ প্রবৃদ্ধির হার ধরা হলো ১৬ দশমিক ৫ শতাংশ। কিন্তু বিতরণ হয়েছে ১৮ শতাংশের বেশি। অথচ বেসরকারি বিনিয়োগ স্থবির অবস্থায় রয়েছে। তাহলে টাকা গেল কোথায়? ব্যক্তি খাতে বিনিয়োগ না বাড়ায় আয়হীন কর্মসংস্থান সৃষ্টি হচ্ছে।

তিনি বলেন, মুদ্রানীতি ঘোষণার কিছু দিন পর আবার সিআরআর কমানো হয়েছে। আপনি নিজের ঘোষিত মুদ্রানীতি যদি না মানেন, তার অর্থ হচ্ছে আপনি বিকলাঙ্গ ব্যাংকিং ব্যবস্থা সৃষ্টি করেছেন।

এ ছাড়া মিডিয়া ব্রিফিংয়ে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে বিতাড়িত হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের পেছনে আগামী ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বাজেটে সরকারের এক বিলিয়ন ডলার ব্যয় (৮ হাজার ২০০ কোটি টাকা) ধরার প্রস্তাব দিয়েছে সিডিপি।
বিস্তারিত

সিলেটে ‘রাজস্ব হালখাতায়’ সোয়া ৮ কোটি টাকার কর আদায়

বাংলা নতুন বছরের প্রথম দিনে বকেয়া কর আদায়ে সিলেট কর অঞ্চল আয়োজিত ‘রাজস্ব হালখাতায়’ ৮ কোটি ২৬ লাখ ৪৮ হাজার ৭৩৩ টাকা বকেয়া কর আদায় হয়েছে।

রোববার সন্ধ্যায় বিষয়টি জানিয়েছেন সিলেটের উপ কর কমিশনার (সদর) কাজল সিংহ। তিনি জানান, সকাল থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত নগরীর হাউজিং এস্টেটস্থ কর কমিশনার কার্যালয়ের আঙিনায় অনুষ্ঠেয় হালখাতায় ৪টি প্রতিষ্ঠানসহ ৭৪২ জন করদাতা এ কর প্রদান করেন।

‘জ্ঞানের মাধ্যমে উদ্বুদ্ধ করে রাজস্ব সংস্কৃতির বিকাশ’ এই স্লোগানে সকাল সাড়ে ১০টায় নগরীর হাউজিং এস্টেট এলাকার নিজস্ব কার্যালয় অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য (বোর্ড প্রশাসন) এসএম আশফাক হুসেন।

সকালে হালখাতা শুরুর পর থেকেই কর পরিশোধ করছেন সিলেট কর অঞ্চলের সাধারণ কর দাতারা। হালখাতা অনুষ্ঠানে কর পরিশোধ করলেই পিঠাপুলিসহ নানা খাবার দিয়ে অাপ্যায়ন করা হচ্ছে। একই সাথে করদাতাদের মাঝে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত ‘আত্মজীবনী’, কারাগারের রোজনামচা, মার্কিন মুলুকে মনোভ্রমন, দেশ-বিদেশের ভ্রমণ কথা, আজব ও জবর-আজব অর্থনীতি, এই পাঁচটি বই উপহার হিসেবে দেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি চলছে আবহমান বাংলার সংস্কৃতি ও বাউল গান।

হালখাতা অনুষ্ঠানে সিলেট গ্যাস ফিল্ড ৬ কোটি ৯৩ লাখ টাকা ও জালালাবাদ দেড় কোটি টাকা পে-অর্ডারের মাধ্যমে আয়কর প্রদান করেছে।

অনুষ্ঠানের আয়োজক সিলেট কর অঞ্চলের কমিশনার আবু হান্নান দেলওয়ার হোসেন বলেন, ‘উন্নয়নের অগ্রযাত্রার মূল উদ্দেশ্য অভ্যন্তরীণ রাজস্ব আদায়। হালখাতা ও বৈশাখীর মূল উদ্দেশ্য মানুষ যাতে উৎসবমুখর পরিবেশে রাজস্ব দিতে পারে। এই আয়োজনের মধ্য দিয়ে রাজস্ব আদায়ে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছেন তারা।’

বিস্তারিত

সিলেটে রাজস্বহালখাতায় করদাতাদের ব্যাপক সাড়া

বাংলা নতুন বছরের প্রথম দিনে বকেয়া আদায়ে এবার ‘রাজস্ব হালখাতা’ আয়োজন করেছে সিলেট কর কমিশনারের কার্যালয়। বৈশাখী উৎসব উপলক্ষে রোববার সকাল থেকে কর কমিশনারের কার্যালয় চত্বরে এ হালখাতা শুরু হয়েছে।  ‘জ্ঞানের মাধ্যমে উদ্বুদ্ধ করে রাজস্ব সংস্কৃতির বিকাশ’ এই স্লোগানে সকাল সাড়ে ১০টায় নগরীর হাউজিং এস্টেট এলাকার নিজস্ব কার্যালয় অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য (বোর্ড প্রশাসন) এসএম আশফাক হুসেন। অনুষ্ঠান চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত।

সকালে হালখাতা শুরুর পর থেকেই কর পরিশোধ করছেন সিলেট কর অঞ্চলের সাধারণ কর দাতারা। হালখাতা অনুষ্ঠানে কর পরিশোধ করলেই পিঠাপুলিসহ নানা খাবার দিয়ে অাপ্যায়ন করা হচ্ছে। একই সাথে করদাতাদের মাঝে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত ‘আত্মজীবনী’, কারাগারের রোজনামচা, মার্কিন মুলুকে মনোভ্রমন, দেশ-বিদেশের ভ্রমণ কথা, আজব ও জবর-আজব অর্থনীতি, এই পাঁচটি বই উপহার হিসেবে দেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি চলছে আবহমান বাংলার সংস্কৃতি ও বাউল গান।

হালখাতা অনুষ্ঠানে সিলেট গ্যাস ফিল্ড ৬ কোটি ৯৩ লাখ টাকা ও জালালাবাদ দেড় কোটি টাকা পে-অর্ডারের মাধ্যমে আয়কর প্রদান করেছে।

অনুষ্ঠানের আয়োজক সিলেট কর অঞ্চলের কমিশনার আবু হান্নান দেলওয়ার হোসেন বলেন, ‘উন্নয়নের অগ্রযাত্রার মূল উদ্দেশ্য অভ্যন্তরীণ রাজস্ব আদায়। হালখাতা ও বৈশাখীর মূল উদ্দেশ্য মানুষ যাতে উৎসবমুখর পরিবেশে রাজস্ব দিতে পারে। এই আয়োজনের মধ্য দিয়ে রাজস্ব আদায়ে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছেন তারা।’

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর মো. মনির উদ্দিন, ড. কবীর চৌধুরী, বাফুফের সদস্য ও সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মাহি উদ্দিন সেলিম, মুক্তিযোদ্ধা সাইফুল আলম, সিলেট চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাস্ট্রিজের সাবেক পরিচালক হিজকিল গুলজার, অতিরিক্ত কর কমিশনার তোহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত কর কমিশনার মোহাম্মদ তৌহিদ মুনির, উপ কর কমিশনার কাজল সিংহ, আনোয়ার সাদাত, গোবিন্দ চন্দ্র দাস, সহকারী কর কমিশনার মোহাম্মদ আবু সাঈদ, সাদ উল্লাহ, ফয়াজ উদ্দিন, বিধান চন্দ্র দেবনাথ, সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকরামুল কবীর, বাংলাদেশ প্রতিদিন ও নিউজ টোয়েন্টিফোরের ব্যুরো প্রধান শাহ দিদার আলম নবেল, চেম্বারের সাংবাদিক আফতাব চৌধুরী, আয়কর আইনজীবী সমিতির সভাপতি মৃত্যুঞ্জয় ধর ভোলা, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মোহাম্মদ আলী খোকন, জালালাবাদ গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন সিস্টেমস লিমিটেড ও সিলেট পেট্রোল বাংলা লিমিটেডের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

কর কর্মকর্তারা জানান, উৎসবের আমেজে রাজস্ব সংস্কৃতি বিকাশের মাধ্যমে করদাতাদের উদ্ধুব্ধ করাই এমন আয়োজনের উদ্দেশ্য। এই আয়োজনের মাধ্যমে আজ প্রায় ৮ কোটি টাকার কর আদায় হবে বলে জানিয়েছেন কর কর্মকর্তারা।

বিস্তারিত

ব্যাংক সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নিয়ে আসার তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর

ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের প্রতি সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার তাগিদ দিয়েছেন।
 
গণভবনে আজ শুক্রবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব ব্যাংকস (বিএবি)র কাছ থেকে অনুদান গ্রহণকালে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি আপনাদেরকে সুদের হার কমানোর কথা বলতে চাই, না হলে দেশে বিনিয়োগ সম্ভব নয়... এটিকে অবশ্যই সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনতে হবে।’
 
তিনি বলেন, ‘সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনলে আপনারা লাভবান হবেন, এতে জনগণ ব্যাংকগুলোর সঙ্গে কাজ করতে অধিক আগ্রহী হবে।’
 
প্রধানমন্ত্রী সুদের হার কমিয়ে ব্যাংক কর্তৃপক্ষগুলোকে তাদের প্রতিশ্রুতি রক্ষার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘আমরা আপনাদের উত্থাপিত সকল সমস্যার সমাধান করেছি, এখন আপনাদেরকে অঙ্গীকার পূরণ করতে হবে।’
 
বিএবি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মজুমদারও অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। বিএবি’র অধীন ব্যাংকগুলো প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে আজ ১৬৩ কোটি টাকা দান করেছে। 
বিস্তারিত

নির্বাচনী বছরে বাজেটে নতুন উদ্যোগ নয় : অর্থমন্ত্রী

নির্বাচনী বছরে বাজেট প্রণয়নের  ক্ষেত্রে নতুন কোনো উদ্যোগ নেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের পারমর্শক কমিটির ৩৯তম সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার সভাপতিতত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী মো. আমিনুল ইসলামসহ এনবিআরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং এফবিসিসিআইয়ের প্রাক্তন ও বর্তমান নেতারা।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘এবার নির্বাচনী বছর। নির্বাচনী বছরে নতুন উদ্যোগ নেওয়া যায় না। পুরাতন ইস্যুতে কাজ করতে হয়। আগের নেওয়া উদ্যোগগুলো বাস্তবায়নই মূল উদ্দেশ্য থাকবে’।

অর্থমন্ত্রী বলেন, এখন অ্যাগ্রোপ্রসেসিং (কৃষি প্রক্রিয়াজাত) শিল্প ভালো হচ্ছে। সরকার এ খাতকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। আগামী বাজেটেও এটা অব্যাহত থাকবে।  এছাড়া কৃষি যন্ত্রপাতি আমদানিতে সুযোগ সুবিধা দেওয়া হবে। সরাসরি রপ্তানির ক্ষেত্রে নগদ সহায়তা (ক্যাশ ইনসেটিভ) দেওয়া হবে।

তিনি বলেন, গত ১০ বছরে এনবিআরের অনেক পরির্বতন হয়েছে। এখন কর দাতারা আগের মত হয়রানির শিকার হচ্ছে না। এর ফলে এখন ৩০ লাখের ওপরে করদাতা ছাড়িয়েছে।

আগামী ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে করমুক্ত আয় সীমা বাড়ানো, করপোরেট কর হার কমানোর দাবি করেছেন ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশন (এফবিসিসিআই)।

এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন সার্বিকভাবে আমদানি শুল্ক ও  মুসক সম্পর্তি লিখিত বেশকিছু প্রস্তাব করেন। এর মধ্যে রয়েছে, ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে ব্যক্তিগত করমুক্ত আয়ের সীমা সাড়ে ৩ লাখ টাকা, করপোরেট কর ২ দশমকি ৫ শতাংশ কমিয়ে সব কোম্পানির করের হার নির্ধারণ করা। ব্যক্তিগত করদাতার প্রদর্শিত নিট পরিসম্পদের ভিত্তিতে সারচার্জের শূন্য শতাংশের সিমা ৩ কোটি টাকায় বাড়ানোর প্রস্তাব করেন।  এছাড়াও দ্বৈত করে নীতি বাতিলের দাবি করা হয়। রপ্তানির ক্ষেত্রে তৈরি পোশাকের সব পণ্যে ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি করেন। দেশীয় শিল্পের মৌলিক কাঁচামাল এবং রসায়নিক জাতীয় পণ্যের ক্ষেত্রে ৫ শতাংশের পরিবর্তে ৩ শতাংশ শুল্ক স্তর নির্ধারনের প্রস্তাব করা হয়।

অনুষ্ঠানটি যৌথভাবে আয়োজন করেছে এনবিআর ও এফবিসিসিআই।
বিস্তারিত

গুগল-ফেসবুক-ইউটিউবকে করের আওতায় আনার নির্দেশ

গুগল, ফেসবুক, ইউটিউব, হোয়াটসঅ্যাপ, ইয়াহু ও অ্যামাজন এর মতো ইন্টারনেট সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে ভ্যাট, ট্যাক্সসহ সব ধরনের রাজস্বের আওতায় আনার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এসব প্রতিষ্ঠান বিগত ১০ বছরে কী পরিমাণ অর্থ আয় করেছে সে বিষয়ে তদন্তের জন্য একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠনেরও নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এ সংক্রান্ত এক রিট আবেদনের ওপর শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি আশরাফুল কামালের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে অর্থ সচিব, আইন সচিব, ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব, তথ্য সচিব, বাংলদেশ ব্যাংকের গর্ভনর, এনবিআর চেয়ারম্যান, বিটিআরসি চেয়ারম্যান, প্রথম আলো সম্পাদক ও বাংলাদেশ নিউজ পেপারস ওনারস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মতিউর রহমান, গুগল, ফেসবুক, ইয়াহু এবং ইউটিউবকে কর্তৃপক্ষকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার হুমায়ুন কবির পল্লব। আদেশের পর তিনি সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গত ৯ এপ্রিল এসব প্রতিষ্ঠানকে করের আওতায় আনার নির্দেশনা চেয়ে রিট করেন সুপ্রিম কোর্টের ছয় আইনজীবী। রিটকারী ছয় আইনজীবী হলেন- ব্যারিস্টার মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির পল্লব, ব্যারিস্টার মোহাম্মদ কাউসার, অ্যাডভোকেট আবু জাফর মো. সালেহ, অপূর্ব কুমার বিশ্বাস, ব্যারিস্টার মোহাম্মদ সাজ্জাদুল ইসলাম ও মোহাম্মদ মাজেদুল কাদের।

পরে ব্যারিস্টার হুমায়ুন কবির পল্লব জানিয়েছিলেন, প্রযুক্তির যুগে গুগল, ফেসবুক এখন প্রাত্যহিক জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা এখন সোশ্যাল মিডিয়ার প্লাটফর্মে বিজ্ঞাপন দেখতে আগ্রহী। দিন দিন এর ব্যবহার বাড়ছে। বাড়ছে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা। এই সুযোগে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে দেশ থেকে কোটি কোটি ডলার নিয়ে যাচ্ছে ইন্টারনেট সংশ্লিষ্ট বিশ্বের নামিদামি প্রতিষ্ঠানসমূহ কিন্তু সরকারকে এক টাকাও রাজস্ব দিচ্ছে না।

তিনি বলেন, ‘প্রতি বছর কত টাকা বিজ্ঞাপন বাবদ বিদেশে পাচার হচ্ছে তার সঠিক কোনো হিসেব নেই সরকারের কোনও প্রতিষ্ঠানের কাছে। কারণ বিজ্ঞাপনদাতারা তাদের অর্থ পরিশোধ করছেন ক্রেডিট কার্ড ও অন্যান্য অনলাইন প্রযুক্তির মাধ্যমে। এর কোনও তথ্য কারও জানা নেই। কত টাকা সরকার আয় করছে আবার কত টাকা এসব কর্তৃপক্ষ নিয়ে যাচ্ছে।’

তাই এ বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে আশু পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য গত ৭ এপ্রিল ৬ জন আইনজীবী লিগ্যাল নোটিশ পাঠান। নোটিশে বেঁধে দেয়া ২৪ ঘণ্টা সময় অতিবাহিত হওয়ার পরেও কোনও প্রকার পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় এই রিট করা হয়।

বিস্তারিত

ঋণখেলাপিদের তালিকা গণমাধ্যমে প্রকাশ করা হবে : অর্থমন্ত্রী

ঋণখেলাপিরা জাতির ভয়ঙ্কর ক্ষতি করছেন। যে টাকাটা অন্যখানে বিনিয়োগ করা যেতো, ঋণখেলাপিরা সে টাকা গুম করে দেন। সময় সময় গণমাধ্যমে এই ঋণখেলাপিদের নাম-ঠিকানা প্রকাশ করা হবে। জানালেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

আজ (বুধবার) সংসদে জাতীয় পার্টির সদস্য রুস্তম আলী ফরাজীর এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ঋণখেলাপিদের তালিকা কয়েক দফায় জাতীয় সংসদে প্রকাশ করা হয়েছে। এ বিষয়ে সংসদ সদস্যরা সহযোগিতা করেছেন। সংসদ সদস্যরা লিস্ট দেখতে চেয়েছেন। আমি সেভাবে কয়েকবার ঋণ খেলাপিদের নাম দিয়েছি। তবে, তাদের নাম ঠিকানা কাগজে (পত্র-পত্রিকায়) প্রকাশের চিন্তা কখনও করিনি। বিষয়টি এখনও ভেবে দেখিনি। তবে নিশ্চয়ই করতে পারি। এই প্রস্তাবটি বিবেচনার উপযুক্ত বলে মনে করি। ভবিষ্যতে এটি বিবেচনা করা যেতে পারে। সময় সময় তাদের নাম প্রকাশ করা যেতে পারে।
বিস্তারিত

বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবার ৫০ হাজার ডলার করে পাবে

নেপালে ইউএস-বাংলার বিমান দুর্ঘটনায় নিহতের পরিবার কমপক্ষে ৫০ হাজার মার্কিন ডলার করে পাবে। যা বাংলাদেশি টাকায় হবে ৪০ লাখ টাকা।

বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাহাজাহান কামাল সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। নেপালে বিমান দুর্ঘটনা পরবর্তী কার্যক্রম জানাতে তিনি এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।

শাহাজাহান কামাল বলেন, ‘বিদ্যমান ওয়ারসো কনভেনশন অনুযায়ী প্রতি নিহতের পরিবার আনুমানিক ৫০ হাজার মার্কিন ডলারের ক্ষতিপূরণ পাবেন। আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে নিহতদের পরিবারকে এই অর্থ প্রদান করা হবে।’

‘আমাদের সিভিল এভিয়েশন অথরিটির আইনজীবী আছে। আমি বলবো, তাদের (নিহতদের) অ্যাড্রেসগুলো দেন। আজকেই আমি নির্দেশ দিয়ে দেবো, তারা সাকসেশন সার্টিফিকেটের বিষয়ে যেন কাজ করে-বলেন মন্ত্রী।’

এ সময় ইউএস-বাংলার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরান আসিফ বলেন, ‘ইন্সুরেন্সের ক্ষতিপূরণ পাওয়ার ক্ষেত্রে আইনি প্রক্রিয়ার একটা ব্যাপার আছে। সবার নাম ঠিকানা আমরা জানি। ক্ষতিপূরণের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের বিদ্যমান আইন অনুযায়ী সাকসেশন সার্টিফিকেট (উত্তরাধিকার সনদ) প্রয়োজন হবে। এই সার্টিফিকেট প্রমাণ করে যিনি নিহত হয়েছেন তার আইনগত উত্তরাধিকারী হচ্ছে অমুক ব্যক্তি।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের ইন্সুরেন্স কোম্পানি ইতিমধ্যে একজন আইনজীবীকে দায়িত্ব দিয়েছেন, তারা প্রত্যেক নিহত পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। এ বিষয়ে ইতিমধ্যে সবাইকে অবহিত করে খবরের কাগজে বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছে-কারো সঙ্গে যদি ইন্সুরেন্স কোম্পানির পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা না হয়ে থাকে তবে তারা যেন যোগাযোগ করেন।

তিনি আরো বলেন, ওয়ারসো কনভেনশন অনুযায়ী আমরা যতটা পরিমাপ করতে পেরেছি তা হলো প্রত্যেক নিহতের পরিবার ৫০ হাজার মার্কিন ডলারের কম পাবেন বলে আমরা মনে করি না, এরচেয়ে বেশিও পেতে পারেন। তাছাড়া আহতরা ক্ষতিপূরণ পাবেন। তবে তারা আহত হওয়ার ধরণ অনুযায়ী বিভিন্ন অঙ্কের ক্ষতিপূরণ পাবেন।

যাত্রীদের ক্ষতিপুরণের বিষয়টির প্রতি জোর দেওয়া হয়েছে জানিয়ে ইউএস বাংলার ইমরান আসিফ বলেন, ‘আমাদের এয়ারক্র্যাফ্টের ক্ষতিপূরণের টাকা এখন চাইলেই নিতে পারি, কিন্তু আমরা বলেছি যাত্রীদের ক্ষতিপূরণের টাকা না দেওয়া পর্যন্ত আমরা এয়ারক্র্যাফ্টের টাকা নেবো না।’

তিনি বলেন, সবাইকে একই সময়ের মধ্যে ক্ষতিপূরণের টাকা দেওয়া যাবে, এটা বলা যাচ্ছে না। কারণ প্রত্যেকটি কেস আলাদাভাবে হ্যান্ডেল করতে হচ্ছে। যারা মারা গেছেন তাদের পরিবার যখনই সাকসেশস সার্টিফিকেটের ব্যাপারটা সম্পন্ন করে আসবেন, ঠিক তখনই ইন্সুরেন্স কোম্পানি টাকা দিয়ে দেবে। সেখানে ইউএস-বাংলার মাঝখান দিয়ে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ বা ম্যানিপুলেশন করার কোনো সুযোগ নেই।

সংবাদ সম্মেলনে বিমান ও পর্যটন সচিব এসএম গোলাম ফারুকসহ মন্ত্রণালয়, সিভিল এভিয়েশন ও ইউএস বাংলার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিস্তারিত

ফারমার্স ব্যাংক কেলেঙ্কারি, চিশতীসহ গ্রেফতার ৪

ফারমার্স ব্যাংকে জালিয়াতির ঘটনায় মাহবুবুল হক চিশতীসহ (বাবুল চিশতী) চারজনকে মঙ্গলবার দুপুরে গ্রেফতার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।
 
আটক অন্য তিনজন হলেন- বাবুল চিশতীর ছেলে রাশেদুল হক চিশতী, ব্যাংকটির সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট জিয়াউদ্দিন আহমেদ ও ফার্স্ট প্রেসিডেন্ট মাসুদুর রহমান খান।
 
বাবুল চিশতী ফারমার্স ব্যাংকের নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন। ঋণ বিতরণে একাধিপত্যের অভিযোগে তাকে পদ থেকে অব্যাহতি দিয়েছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক।
 
এর আগে ঋণ কেলেঙ্কারি নিয়ে তদন্তের মুখে থাকা ফারমার্স ব্যাংকের ১৭ কর্মকর্তা ও গ্রাহকের দেশত্যাগের ওপর নিষেধাজ্ঞা চেয়েছিল দুদক।
 
জালিয়াতির মাধ্যমে ব্যাংকটির কোটি কোটি টাকা আত্মসাতের পর তারা বিদেশে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টায় রয়েছেন বলে সন্দেহ দুদকের।
 
দুদকের উপপরিচালক সামছুল আলম পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) অতিরিক্ত মহাপরিদর্শককে চিঠি দিয়ে তাদের দেশত্যাগের নিষেধাজ্ঞায় ব্যবস্থা নিতে বলেছেন।
 
চিঠিতে তিনি বলেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে জালিয়াতির মাধ্যমে পরস্পর যোগসাজশে ব্যাংকের কোটি টাকা আত্মসাৎ ও ওই টাকায় অবৈধ সম্পদ অর্জন এবং নামে-বেনামে বিদেশে অর্থপাচারের আভিযোগ রয়েছে।
 
এতে আরও বলা হয়, অত্র অভিযোগের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বিদেশে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। তাই অভিযোগের সুষ্ঠু অনুসন্ধানের স্বার্থে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিদেশ গমনরহিতকরণ একান্ত প্রয়োজন।
বিস্তারিত

শিক্ষা খাতে কোন ভ্যাট আরোপ হবে না: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা: এই মুহূর্তে শিক্ষায় ভ্যাট না বসানোর কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) সভায় এক অনির্ধারিত আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন। সভা শেষে পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।
 
মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা।
 
মুস্তফা কামাল বলেন, প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে শিক্ষায় ভ্যাট বসানো হবে না। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কিছুতেই ভ্যাট নেওয়া যাবে না।
 
সোমবার রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের সম্পাদকদের সঙ্গে প্রাক-বাজেট আলোচনা শেষে অর্থমন্ত্রী বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের টিউশনি ফির ওপর কর আরোপ হবে। ছাত্রদের কাছ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মালিকরা কিভাবে তা আদায় করবে সেটা তাদের বিষয়। আমরা এ ব্যাপারে কোনো ছাড় দেব না।
বিস্তারিত

চড়া ইলিশের দাম

বাঙালির প্রাণের উৎসব পয়লা বৈশাখের বাকি মাত্র সাত দিন। তাই পয়লা বৈশাখ সামনে রেখে ভোক্তাদের দৃষ্টি এখন ইলিশ মাছের দিকে। এ কারণে সপ্তাহখানেক আগেই চড়া ইলিশ মাছের দাম।

শনিবার রাজধানীর কাওরান বাজার, নিউমার্কেট ও পলাশী বাজার মার্কেট ঘুরে এ দরদামের এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, গত কয়েক সপ্তাহ থেকেই ইলিশ মাছের দাম চড়া। বৈশাখ আসার দু-এক দিন আগে চাহিদা আরো বাড়বে। আর যত চাহিদা বাড়বে তত দাম বাড়ার আশংকাও রয়েছে। এরই মধ্যে ইলিশের দাম বেড়ে গেছে ৩০০ থেকে ৫০০ টাকা। তবে এক কেজি ওজনের ইলিশ খুব বেশি পাওয়া যাচ্ছে না। পাওয়া গেলেও বাজার ভেদে এ ইলিশ বিক্রি হচ্ছে দেড় থেকে ২ হাজার টাকা বা তার চেয়েও বেশি দামে। এ ছাড়া ৫০০ গ্রাম ওজনের প্রতিজোড়া ইলিশ মাছ বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার থেকে ১ হাজার ২০০ টাকায়।

এদিকে ভোক্তারা অভিযোগ করেন, বাজারে পর্যাপ্ত ইলিশ মাছ সরবরাহ থাকলেও প্রতি বছর বৈশাখ আসার আগেই কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর কারসাজির কারণে রাজধানীসহ সারা দেশেই ইলিশ মাছের দাম বাড়িয়ে ফেলে বিক্রেতারা। কিন্তু বৈশাখ সামনে রেখে এই মাছটির দাম বাড়া ঠিক নয়।

কাওরান বাজারের ইলিশ মাছ বিক্রেতা রাকিব বলেন, পাইকারি বাজারে মাছের দাম বেড়ে যাওয়ার খুচরা বাজারে তার প্রভাব পড়েছে। ভোক্তাদের বাড়তি চাহিদার কারণেও দাম বাড়ে।

প্রায় একই কথা জানালেন পলাশী বাজারের মাছ বিক্রেতা রতন। তিনি বলেন, আমরা জানি ইলিশ মাছ ধরা নিষেধ, কিন্তু বাজারে এর চাহিদা অনেক। তাই বর্তমানে পাইকারিদের কাছ থেকে নিতে হচ্ছে অনেক বেশি দামে। আর এ সুযোগে তারা মাছের দামও রাখছেন অনেক বেশি। তারপরও ক্রেতাদের চাহিদা বেশি থাকায় বেশি দাম দিয়েও মাছ আনছি আমরা। এ কারণেই খুচরা বাজারে ইলিশের দাম বেশি। এটা হয়তো বৈশাখের আগ পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।

বিস্তারিত

ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড বিবাহ বৈশাখী উৎসব শুরু

উদ্বোধন করা হয়েছে ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড আয়োজিত ‘বিবাহ বৈশাখী উৎসব।’ আজ রাজধানীর অভিজাত পাঁচ তাঁরকা হোটেল ওয়েস্টিন এর বল রুমে এ মেলার ফিতা কেটে উদ্বোধন করেন ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, এফবিসিসিআই এর পরিচালক এবং বাংলাদেশ জুয়েলারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জনাব দিলীপ কুমার আগরওয়ালা।  এসময় প্রতিষ্ঠানটির অন্যান্য কর্তা ব্যক্তিরাও উপস্থিত ছিলেন।
 
 এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে আগরওয়ালা বলেন, “এদেশীয় সংস্কৃতি ও মানুষের রুচিবোধের কথা চিন্তা করে এবারের বিবাহ উৎসবে এমন কিছু নতুন পণ্যের প্রদর্শন করা হবে যা ক্রেতাদের মনোযোগ আকর্ষণ করবে বলে আমাদের বিশ্বাস। তিনি আরো বলেন, যারা বিয়ে সহ অন্যান্য আয়োজনে কেনাকাটার জন্য বিদেশমুখী হন তারা অন্তত একবারের জন্য হলেও আমাদের মেলায় আসবেন, আশা করি আপনারা নিরাশ হবেন না।”
 
এদেশীয় সংস্কৃতি ও মানুষের রুচি বোধের কথা চিন্তা করে ডায়মন্ড ও গোল্ডের প্রায় চল্লিশ হাজারেরও বেশি ডিজাইনের প্রোডাক্ট প্রতিষ্ঠানটির সমৃদ্ধ ভান্ডার থেকে প্রদর্শনীতে দর্শনার্থী ও ক্রেতা সাধারণের জন্য উন্মুক্ত করা হয়। মূলত রোড গোল্ড কালেকশন, নূর কালেকশন, নিকাহ কালেকশন, প্রমিজ কালেকশন, ম্যাগনাস কালেকশন এর প্রতি ক্রেতারে বাড়তি আগ্রহ পরিলক্ষিত হয়।
 
দি আর্ট অব বিউটি স্লোগান নিয়ে হীরা ও স্বর্ণের গনহার শৈল্পিক কারুকাজ, অনবদ্য ডিজাইন, প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের অপূর্ব সমন্বয় পুঁজি করে যাত্রা শুরু করা জুয়েলারী প্রতিষ্ঠানটি এরই মধ্যে গ্রাহকদের ভালোবাসায় দেশের এক নম্বর জুয়েলারী প্রতিষ্ঠানের খ্যতি অর্জন করেছে। পেয়েছে জুয়েলারীতে বাংলাদেশের প্রথম ISO Certificate. প্রতিষ্ঠানটির কুড়িটি শাখা ছড়িয়ে রয়েছে দেশের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে। রয়েছে বিশ্বমানের কাস্টমার কেয়ার, আফ্টার সেল্স সার্ভিস ও অনলাইন  সেবা। প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার বলেন, “শুরু থেকেই আমার ইচ্ছা ছিল প্রতিটি গ্রাহকদের জন্য বিশ্বমান ও ডিজাইনের গহনা নিশ্চিত করা এবং গহনার গুনগত মান ও ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করা। আমরা মনে হয় সকলের সহযোগিতায় তা সম্ভব হয়েছে।”
 
এছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়,  বাংলা নববর্ষ ১৪২৫ কে আমন্ত্রণ জানাতে এবং প্রিয় মুহূর্তকে ভালবাসার রং এ রাঙ্গিয়ে দিতে ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড এর প্রতিটি শোরুমে থাকবে তিনদিন ব্যাপি (১২ থেকে ১৪ এপ্রিল ২০১৮) বৈশাখী মেলা।
বিস্তারিত

ফেসবুক ও ইউটিউবকে করের আওতায় আনার প্রস্তাব

ফেসবুক ও ইউটিউবকে করের আওতায় আনার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

সংবাদপত্র মালিকদের সংগঠন নিউজ পেপারস ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (নোয়াব) সভাপতি মতিউর রহমান, টেলিভিশন মালিকদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব টেলিভিশন চ্যানেল ওনার্সের (অ্যাটকো) চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান এ প্রস্তাব দেন।

বুধবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রাক-বাজেট আলোচনায় তারা এ প্রস্তাব দেন।

প্রাক-বাজেট আলোচনায় অ্যাটকোর সহ-সভাপতি আরিফ হাসান, পরিচালক ফারজানা মুন্নি, ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনামসহ উভয় সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় বিদেশী চ্যানেল প্রচারে ল্যান্ডিং ফি নির্ধারণ, বিজ্ঞাপনে ভ্যাট ব্যবস্থা সহজীকরণ ও সংবাদপত্রের কাগজ আমদানি থেকে সব পর্যায়ে কর অব্যাহতি দেওয়ার প্রস্তাব করেছে সংগঠন দুটি।

বাজেট আলোচনায় মতিউর রহমান বলেন, বর্তমানে টেলিভিশন ও অনলাইন শক্তিশালী হচ্ছে। তাই তাদের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে টিকে থাকা সংবাদপত্রের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। সর্বত্রই পত্রিকার পাঠক কমেছে। এ কারণে বিজ্ঞাপন কমে গেছে। অপরদিকে আন্তর্জাতিকভাবে নিউজ প্রিন্টের দাম বেড়েছে। ফলে আমরা বিপদে পড়েছি। সব মিলিয়ে পত্রিকা এখন রুগ্ন শিল্পের কাতারে। এমতাবস্থায় নিউজ প্রিন্ট আমদানি শতভাগ শুল্কমুক্ত করা, সংবাদপত্রে করপোরেট কর প্রত্যাহারসহ অগ্রিম আয়কর প্রত্যাহার করতে হবে।

মতিউর রহমান বলেন, মানুষ ইউটিউব ও ফেসবুকের দিকে ঝুঁকছে। ইউটিউব ও ফেসবুক এখন বিজ্ঞাপন প্রচারের মাধ্যমে প্রচুর আয় করছে। সংবাদপত্র ও টেলিভিশনগুলো তাদের বিজ্ঞাপনে সরকারকে রাজস্ব দিলেও নিয়ন্ত্রণের বাইরে এ মাধ্যমগুলো। ফলে সংবাদপত্র ও টিভিতে বিজ্ঞাপন না এসে ফেসবুক ও ইউটিউবে চলে যাচ্ছে। তাই দেশীয় আইনের মধ্যে এদের এনে নিয়ন্ত্রণ করলে সরকারের রাজস্ব অনেক বাড়ার পাশাপাশি দেশীয় গণমাধ্যম বেঁচে থাকবে।

সালমান এফ রহমান বলেন, ফেসবুক, ইউটিউবের কারণে দেশের গণমাধ্যম সংকটে পড়েছে। এগুলোকে আইনের মধ্যে নিয়ে আসলে সবাই উপকৃত হবে। সংবাদপত্র শিল্প বেঁচে থাকবে। আগামী বাজেটে এ বিষয়গুলোর পাশাপশি রপ্তানিবান্ধব নীতি করতে হবে।

ডেইলি স্টার পত্রিকার সম্পাদক মাহফুজ আনাম বলেন, সাধারণ নিয়ম অনুযায়ী মূল বেতনের ৪০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়ি ভাড়া পান চাকরিজীবীরা, যা করমুক্ত। তবে সংবাদপত্রে এটি ৬৫ শতাংশ হওয়ায় ২৫ শতাংশের ওপর কর দিতে হয় সংবাদপত্র মালিকদের। এটি তুলে দেওয়া জরুরি।

মোজ্জামেল বাবু বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই দেখে আসছি, আমাদের দেশে বিদেশী চ্যানেল প্রচারে কোনো ধরনের ফি দিতে হয় না। আমাদের দেশের চ্যানেল অন্য কোনো দেশে প্রচার করলেই সংশ্লিষ্ট দেশকে ল্যান্ডিং ফি দিতে হয়। পৃথিবীর প্রায় সব দেশেই এ পদ্ধতি চালু রয়েছে। এসব চ্যালেনের বিজ্ঞাপন আয় থেকে রেভিনিউ বঞ্চিত হওয়ার পাশাপাশি সংকটে পড়ছে দেশীয় টিভি চ্যালেনগুলো। প্রাথমিকভাবে খেলা ও খবরের চ্যানেলগুলো বাদ দিয়ে বাকি সব চ্যানেলের ওপর ল্যান্ডিং চার্জ আরোপ করা উচিত।

আলোচনায় প্রধানমন্ত্রীর তথ্যবিষয়ক উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন,  সরকার যেহেতু সেবা খাত হিসেবে ব্যাংককে আলাদা সুবিধা দিচ্ছে, গণমাধ্যমকে গণতন্ত্রের অপরিহার্য অংশ হিসেবে সেবামূলক প্রতিষ্ঠান হিসেবে গণ্য করে তাকেও সব ধরনের সুযোগ সুবিধা দিতে হবে। এটিকে টিকিয়ে রাখতে এনবিআরও কর-ভ্যাটে ছাড় দিয়ে দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখার সুযোগ দেবে।
বিস্তারিত

আইডিবি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে অর্থমন্ত্রীর বৈঠক

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংককে (আইডিবি) পরীক্ষিত বন্ধু হিসেবে উল্লেখ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

তিনি বলেন, সম্প্রতি বাংলাদেশ অনুন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। এর পেছনে আইডিবি বিশেষ ভূমিকা রেখেছে। এজন্য বাংলাদেশের জনগণ এবং শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের পক্ষ থেকে আইডিবি প্রেসিডেন্টকে ধন্যবাদ জানান অর্থমন্ত্রী।

মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সাড়ে ১২টায় অর্থমন্ত্রী আইডিবির প্রেসিডেন্ট বন্দর এমএইচ হাজ্জাজের সঙ্গে এক বৈঠকে মিলিত হন। এ সময় তিনি এ কথা বলেন। অর্থমন্ত্রী বর্তমানে আইডিবির ৪৩তম বার্ষিক সম্মেলনে যোগ দিতে তিউনিসিয়ার রাজধানী তিউনিসে অবস্থান করছেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে এখন রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বিরাজ করছে। এছাড়া আইনশঙ্খলা  পরিস্থিতি যথেষ্ট উন্নতি হয়েছে। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বর্তমান সরকারের গৃহীত বিভিন্ন অর্থনৈতিক পদক্ষেপের কারণে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে গতি ফিরে এসেছে।

তিনি বলেন, সরকারের গণমুখী নীতিমালার ফলশ্রুতিতে বেসরকারি খাত অর্থনৈতিক উন্নয়নে উল্লেখজনক ভূমিকা রাখছে। বাংলাদেশ এখন বিদেশ বিনিয়োগের জন্য উৎকৃষ্ট স্থান। বিণিয়োগকারীদের জন্য সরকার নানা সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে। এ সময় তিনি বিনিয়োগের সুযোগ সৃষ্টির জন্য দেশের বিভিন্ন স্থানে অর্থনৈতিক অঞ্চল গঠনের বিষয়টি তুলে ধরেন।

অর্থমন্ত্রী বিশ্ব ব্যাংক ও এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকসহ (এডিবি) অন্য দাতা সংস্থার অর্থ ছাড়ের প্রসঙ্গ তুলে ধরেন। তিনি বলেন,  দাতা সংস্থার ঋণের অর্থ ছাড়ের চেয়ে আইডিবির অর্থ ছাড়ের গতি অনেকটা শ্লথ। এ কারণে উন্নয়ন প্রকল্পগুলো সময়মত সম্পন্ন করা সম্ভব হয় না। তিনি এ সমস্যা সমাধানে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে আইডিবির প্রেসিডেন্ট বিষয়টি শোনেন এবং এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দেন। এ সময় আইডিবি প্রেসিডেন্ট আঞ্চলিক অফিসগুলোকে আরো ক্ষমতা দেওয়া হবে বলে উল্লেখ করেন।

এ সময় অর্থমন্ত্রী বিষয়টি দ্রত সমাধানের কথা উল্লেখ করেন এবং আগামী জুনে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে যাতে বিষয়টি তুলে ধরা যায় সে বিষয়ে আইডিবি প্রেসিডেন্টের দৃষ্টি আকর্ষণ  করেন। আইডিবি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠককালে অর্থমন্ত্রী মিয়ানমার থেকে অত্যাচারিত হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা মুসলিম নাগরিকদের সমস্যার প্রসঙ্গ তুলে ধরেন।

অর্থমন্ত্রী তার আহ্বানে সাড়া দেওয়ার জন্য আইডিবি প্রেসিডেন্টকে ধন্যবাদ জানান। অর্থমন্ত্রী তার আলোচনায় রোহিঙ্গা নিধনকে জাতিগত নিধন হিসেবে উল্লেখ করলে আইডিবি প্রেসিডেন্ট রোহিঙ্গা মুসলমানদের অত্যাচারের নিন্দা জানান।

তিনি বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশের এক মিলিয়নেরও বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থীকে আশ্রয় দেওয়া হয়েছে, যা দেশের অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। রোহিঙ্গাদের জীবনযাত্রা এবং নিরাপদ প্রত্যাবাসন নিশ্চিত করতে বহু দেশের এবং জাতিসংঘ সংস্থা পাশাপাশি মুসলিম দেশসমূহের সহযোগিতার জন্য অর্থমন্ত্রী সদস্য দেশগুলোর সমর্থন চেয়েছেন। আইডিবির প্রেসিডেন্ট এ বিষয়ে বাংলাদেশকে সহযোগিতা দেওয়ার আশ্বাস দেন।

বিস্তারিত

‘ব্যবসায়ীরা বিরক্ত হয়, এমন কিছু করা হবে না’

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূইয়া বলেছেন, ব্যবসায়ী বিরক্ত হয়, এমন কিছু করা হবে না। রাজস্ব আহরণ বড় বিষয়। অনেক সময় রেট কমালেও রাজস্ব বাড়ে। আমরা এ বিষয়টি বিবেচনা করার চেষ্টা করব।

সোমবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় রাজস্ব ভবনের সভাকক্ষে ফরেন ইনভেস্টরস চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ফিকি) নেতাদের সঙ্গে প্রাক-বাজেট আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন।

ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, বাজেট বাস্তবায়নের জন্য রাজস্ব আয় বাড়ানোর বিকল্প নেই। তবে এর জন্য আমরা জোর করে কারো কাছ থেকে কর আদায় করতে চাই না। আপনাদের পরামর্শ নিয়ে পরিকল্পিত পদ্ধতিতে রাজস্ব আহরণ করতে চাই।

তিনি আরো বলেন, ‘আসন্ন বাজেট হচ্ছে বর্তমান সরকারের চলতি মেয়াদের শেষ বাজেট। তাই স্বাভাবিকভাবে এবারের বাজেট হবে ৫ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বড় বাজেট। এই বাজেটের উন্নয়ন ও অনুন্নয়ন ব্যয় মেটাতে রাজস্ব আয় বাড়াতে হবে। এজন্য যেসব খাত ও ব্যক্তি এখনো করের আওতার বাইরে রয়েছে, তাদের কাছ থেকে কর আদায়ে আমরা ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা চাই।’

ব্যাংকের ঋণ খেলাপী প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমরা ছোট ছোট ঋণের গ্রাহকদের শক্ত করে ধরি। কিন্তু বড় বড় ঋণখেলাপীদের বার বার সুবিধা দেই। আমরা এটা চাই না।
বিস্তারিত

  • ‘মৃত শিশুর মাতৃত্ব নিয়ে সন্দেহ’ তদন্ত কমিটি গঠন
  • শুটিং না করেও টিজারে মুনমুন, পরিচালক বলছেন ভিন্ন কথা
  • বিশ্ব একাদশের হয়ে খেলবেন সাকিব-তামিম
  • বিয়ানীবাজারে জেনোসিডিল সহ যুবক আটক
  • বজ্রপাতের সময়ে যেসব বিষয়ে সতর্ক থাকতে হয়
  • এবার গোপালগঞ্জে বাসচাপায় এক নারী নিহত
  • সিকৃবিতে ‘সেলফ এসেসমেন্ট’ কমিটির কর্মশালা অনুষ্ঠিত
  • প্রভাষক জুয়েল হত্যার প্রতিবাদে সিলেটে মানববন্ধন
  • সিলেটে মশা নিধনে কার্যকর পদক্ষেপের দাবি
  • রাজনগরে গৃহবধূ খুন
  • বাংলাদেশ লোকসংস্কৃতি ফোরাম এর সিলেট বিভাগীয় প্রতিনিধি অসিত বরণ
  • ধোপাদিঘীর ‘ক্ষতি নয়,সৌন্দর্যবর্ধন করছে’ সিসিক
  • সিলেট চেম্বারে এসএমই উদ্যোক্তাদের ব্যবসা বিকাশে ই-কমার্স শীর্ষক সেমিনার
  • সুনামগঞ্জে ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক
  • শাবিতে আসছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান
  • কাবুলে জঙ্গি হামলা, নিহত বেড়ে ৬৩
  • পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে তারেকের লিগ্যাল নোটিশ
  • বিএনপির মিছিলে পুলিশি বাধা
  • জাতীয় পার্টিতে বিএনপির অনেক নেতাই যোগ দেবে: এরশাদ
  • সংবাদ সম্মেলনে রিজভী তারেক রহমান পাসপোর্ট জমা দিলে সবাইকে দেখান
  • মুসলমানরাই সবচেয়ে বেশি সন্ত্রাসের শিকার: বান কি মুন   ৫০৬৯৯
  • ছলনাময়ী নারীদের চেনার উপায়   ১৪৮৯১
  • মেয়র কালামের পায়ের নিচে ওসি আতাউর শার্ট খুলে লিনডাউন,তারপর জুতো পেটার প্রস্তাব   ১৪৭৯৯
  • জুমার নামাজ ছুটে গেলে কী করবেন?   ১৩৪৪৮
  • ​চিনা কোম্পানিকে কাজ দিতে প্রতিমন্ত্রী তারানার স্বাক্ষর জাল   ৯৪৩০
  • জেনে নিন ছুলি দূর করতে কিছু ঘরোয়া উপায়   ৯৩৪২
  • মুসাফির কাকে বলে? মুসাফিরের রোযা ভঙ্গ করলে   ৮৯৩৩
  • ডিমের পর স্বয়ংসম্পূর্ণতার পথে সোনালি মুরগি   ৮৭৭১
  • গরুর দুধের অসাধারণ কয়েকটি গুণ   ৮৪৭৯
  • ঋণখেলাপি নই-হুন্ডি ব্যবসায়িও নই,সম্পত্তি নিলামের খবর অপপ্রচার-নাসির   ৮৪৬০
  • খতমে ইউনুস নামে সামাজে চলে আসা জালিয়াতী   ৭৮৭২
  • মুঘল সম্রাটদের দিনযাপন   ৭০১৮
  • হযরত শাহ্‌ জালাল ইয়েমেনী (রাঃ)-এঁর সংক্ষিপ্ত জীবনী   ৬৪৫৯
  • চিত্রনায়িকা সাহারার সেক্স ভিডিও ফাঁস!   ৬৪২৪
  • ম,আ,মুক্তাদিরের ছেলে রাহাত লন্ডনে এক সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছে   ৬৪১০
  • শিশুর কানে আজান দেবে কে?   ৬২৮০
  • প্রশ্নব্যাংকে প্রশ্ন, স্বয়ংক্রিয়ভাবে বাছাই হয়ে পরীক্ষা   ৫৭৪১
  • কামরূপ-কামাখ্যা : নারী শাসিত যাদুর ভূ-খন্ড   ৫৭৩২
  • ফুলবাড়ির বশর চেীধুরী আজ ইন্তেকাল করেছেন   ৫৬৪৯
  • চিকিৎসায় দ্রুত সরকারি সহযোগিতা চান খাদিজার বাবা মাসুক মিয়া   ৫৪১৯
  • সাম্প্রতিক আরো খবর

  • সিলেট চেম্বারে এসএমই উদ্যোক্তাদের ব্যবসা বিকাশে ই-কমার্স শীর্ষক সেমিনার
  • ‘সিলেট-মালয়েশিয়া ফ্লাইট চালুর করবে এয়ার এশিয়া’
  • চামড়া শিল্পনগরীর জন্য কর অবকাশ দাবি
  • ‘সব ক্ষেত্রে কর হার শূন্য করা সম্ভব না’
  • বোতলজাত সয়াবিন তেল লিটারে বেড়েছে ২ টাকা
  • জাতীয় বাজেট সামনে রেখে ব্যবসায়ীদের সাথে সিলেট চেম্বারের মতবিনিময়
  • কর দিতে হবে সিনএনজি অটোরিকশা মালিকদের
  • কমনওয়েলথ বাণিজ্য প্রসারে ৭ দফা প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর
  • জাতীয় বাজেট সম্পর্কে চেম্বারের মতবিনিময় বৃহস্পতিবার
  • টোয়াবের আয়োজনে আজ থেকে শুরু হচ্ছে পর্যটন মেলা
  • ব্যাংক খাত এতিম অবস্থায় রয়েছে : সিপিডি
  • সিলেটে ‘রাজস্ব হালখাতায়’ সোয়া ৮ কোটি টাকার কর আদায়
  • সিলেটে রাজস্বহালখাতায় করদাতাদের ব্যাপক সাড়া
  • ব্যাংক সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নিয়ে আসার তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর
  • নির্বাচনী বছরে বাজেটে নতুন উদ্যোগ নয় : অর্থমন্ত্রী
  • গুগল-ফেসবুক-ইউটিউবকে করের আওতায় আনার নির্দেশ
  • ঋণখেলাপিদের তালিকা গণমাধ্যমে প্রকাশ করা হবে : অর্থমন্ত্রী
  • বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবার ৫০ হাজার ডলার করে পাবে
  • ফারমার্স ব্যাংক কেলেঙ্কারি, চিশতীসহ গ্রেফতার ৪
  • শিক্ষা খাতে কোন ভ্যাট আরোপ হবে না: প্রধানমন্ত্রী
  • চড়া ইলিশের দাম
  • ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড বিবাহ বৈশাখী উৎসব শুরু
  • ফেসবুক ও ইউটিউবকে করের আওতায় আনার প্রস্তাব
  • আইডিবি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে অর্থমন্ত্রীর বৈঠক
  • ‘ব্যবসায়ীরা বিরক্ত হয়, এমন কিছু করা হবে না’