সর্বশেষ খবর

   সিলেট ওসমানী হাসপাতালের সাবেক উপ-পরিচালকসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ মামলা    রেলপথ আধুনিকায়ন : ঢাকা থেকে সিলেট যাওয়া যাবে চার ঘণ্টায়    জিন্দাবাজারে আবারও ‘রিফাত’কে জরিমানা    তাহিরপুরে রক্তি নদীতে ট্রলার ডুবে নারী শ্রমিক নিখোঁজ: আহত ১০    ফ্যালকাওয়ের ১৬ মাসের কারাদণ্ড, ৯ মিলিয়ন ইউরো জরিমানা    ইংল্যান্ডে খেলবেন বাংলাদেশের তিন নারী ক্রিকেটার    অঘটনের জন্ম দিতে পারে মিসর    বিশ্বকাপের আগে পগবার ওমরা পালন    গোপন তালিকা অনুযায়ী অভিযান চলছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী    যুক্তরাষ্ট্রে সিনেটর পদে বিজয়ী বাংলাদেশি চন্দন    অপমানের প্রতিশোধ নিতে বড়লেখায় স্কুল ছাত্রকে হত্যা    হবিগঞ্জে ২১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার    মাদকবিরোধী অভিযান: ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সারাদেশে আরো ৯জন নিহত    ঈদে ট্রেনের আগাম টিকিট ১ জুন থেকে    কানাইঘাটে পুকুরে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু    ‘৬০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে সিলেট-সুলতানপুর সড়ক সাময়িকভাবে সংস্কার করা হচ্ছে’    শুদ্ধ কুরআন শিক্ষার প্রয়াস অব্যাহত রাখতে হবে    রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য স্বাভাবিক রয়েছে: সিলেট চেম্বার    সাংসদ বদিসহ সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে: কাদের    রাজশাহীতে চোরাই গরু নিয়ে বিপাকে পুলিশ


শিক্ষা-ক্যাম্পাস

শাবিতে বিভাগীয় প্রধান কর্তৃক শিক্ষক লাঞ্ছনার অভিযোগ

সিলেট বার্তা, ২০১৮-০৪-২০ ১২:২৯:৫৬

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজ বিভাগের বিভাগীয় প্রধানের দ্বারা লাঞ্ছনার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পেট্রোলিয়াম এন্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের এক শিক্ষক।

উপাচার্য বরাবর দাখিল করা অভিযোগ পত্রে এই বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘গত ১৬ এপ্রিল বিভাগের জরুরি সভায় ১৩২ নম্বর ল্যাবরেটরি রুমের দায়িত্ব বন্টন নিয়ে বিভাগের প্রধানের সাথে তার কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে বিভাগীয় প্রধান তীব্র উত্তেজিত হয়ে আমাকে গেইট আউট গেইট আউট বলে আমার ডান হাতে প্রচন্ডভাবে আঘাত করেন।’

তিনি বলেন, ‘এসময় উপস্থিত থাকা অন্যান্য সহকর্মীরা বিভাগীয় প্রধানকে থামিয়ে দিলে পরক্ষণেই আবার উত্তেজিত হয়ে আমাকে আক্রমণ করতে তেড়ে আসেন। পরে অনেক ধস্তাধস্তি করে সহকর্মীরা আবার তাকে থামিয়ে দেন।’

অভিযোগপত্রে ‘বিভাগীয় প্রধান’ কর্তৃক লাঞ্ছনার কথা উল্লেখ করা হলেও কোন ব্যক্তির নাম উল্লেখ করেননি তিনি।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পেট্রোলিয়াম এন্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান হচ্ছেন সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. শফিকুল ইসলাম।

এ ঘটনার সময় বিভাগের অন্যান্য শিক্ষকদের মধ্যে এটিএম শহিদুল হক মজুমদার, মো. জাকারিয়া, ড. মো. সাইফুল আলম, ড. এম ফরহাদ হাওলাদার এবং সিফাত হোসাইন উপস্থিত ছিলেন বলে অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করেন রফিকুল ইসলাম।

সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, বিভাগের একটা ল্যাবরুমে গুরুত্বপূর্ণ একটা প্রোজেক্টের কাজ চলছে। আর সে রুমটার মূল্যবান জিনিসপত্র অভিযুক্ত শিক্ষক কুক্ষিগত করতে চাইছে। তাতে বাঁধা দেওয়ার এ নেক্কারজনক ঘটনা ঘটিয়েছে সে।

এ বিষয়ে খোঁজ নিতে পেট্রোলিয়াম এন্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, বিভাগের একটা সামান্য ঘটনাকে বাজেভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। বিভাগের মিটিংয়ের এ বিষয় বাইরে বলার মতো এমন কিছু ঘটেনি। তবে এ বিষয়ে উপাচার্য মহোদয় অবগত আছেন বলে জানান তিনি।

শেয়ার করুন

Print Friendly and PDF

আপনার মতামত দিন