সর্বশেষ খবর

   ‘ভয়ংকর পরিস্থিতি তৈরি করতে চাচ্ছে ঢাবি প্রশাসন’    প্যারিসে সবুজ বাংলা বুশারি শপের উদ্ভোধন    সাংবাদিক কামরুলের উপর হামলাকারীদের গেপ্তারের দাবীতে সিলেটে মানববন্ধন    করমর্দন না করায় নাগরিকত্ব আবেদন বাতিল    ক্যাসিও’র পানিরোধক স্মার্ট ঘড়ি    জাতিসংঘের ৩ সংস্থার নির্বাচনে বাংলাদেশের বিজয়    গুঞ্জন উড়ালেন কিয়ারা    ‘অসহায় শিল্পীদের পাশে দাঁড়াতেই কনসার্টে অংশ নিচ্ছি’    পরের ম্যাচ জিতলেই চ্যাম্পিয়ন বার্সা    বোলিংয়ে বিবর্ণ সাকিবের ব্যাটে ঝড়, হায়দরাবাদের প্রথম হার    দুই সিটিতে ২০ দলীয় জোটের চার কমিটি    বিচ্ছিন্ন নয়, সামগ্রিক আন্দোলন চান ফখরুল    বিএনপির ঐক‌্য সরকারকে পীড়া দিচ্ছে : রিজভী    শাবিতে বিভাগীয় প্রধান কর্তৃক শিক্ষক লাঞ্ছনার অভিযোগ    টাইম ম্যাগাজিনের ১০০ প্রভাবশালীর তালিকায় শেখ হাসিনা    জাতীয় বাজেট সামনে রেখে ব্যবসায়ীদের সাথে সিলেট চেম্বারের মতবিনিময়    সুনামগঞ্জ ছাত্রলীগের সভাপতি ও সম্পাদক পদে লড়ছেন ১০ জন    ফেঞ্চুগঞ্জে পাচারকালে ৬৬ বস্তা রিলিফের চাল জব্দ    ধর্ম অবমাননার অভিযোগে তসলিমা-সুপ্রীতিদের বিরুদ্ধে মামলা    শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করলেন ট্রুডো


অর্থনীতি

বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবার ৫০ হাজার ডলার করে পাবে

সিলেট বার্তা, ২০১৮-০৪-১১ ১৬:২২:৫৫

নেপালে ইউএস-বাংলার বিমান দুর্ঘটনায় নিহতের পরিবার কমপক্ষে ৫০ হাজার মার্কিন ডলার করে পাবে। যা বাংলাদেশি টাকায় হবে ৪০ লাখ টাকা।

বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাহাজাহান কামাল সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। নেপালে বিমান দুর্ঘটনা পরবর্তী কার্যক্রম জানাতে তিনি এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।

শাহাজাহান কামাল বলেন, ‘বিদ্যমান ওয়ারসো কনভেনশন অনুযায়ী প্রতি নিহতের পরিবার আনুমানিক ৫০ হাজার মার্কিন ডলারের ক্ষতিপূরণ পাবেন। আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে নিহতদের পরিবারকে এই অর্থ প্রদান করা হবে।’

‘আমাদের সিভিল এভিয়েশন অথরিটির আইনজীবী আছে। আমি বলবো, তাদের (নিহতদের) অ্যাড্রেসগুলো দেন। আজকেই আমি নির্দেশ দিয়ে দেবো, তারা সাকসেশন সার্টিফিকেটের বিষয়ে যেন কাজ করে-বলেন মন্ত্রী।’

এ সময় ইউএস-বাংলার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরান আসিফ বলেন, ‘ইন্সুরেন্সের ক্ষতিপূরণ পাওয়ার ক্ষেত্রে আইনি প্রক্রিয়ার একটা ব্যাপার আছে। সবার নাম ঠিকানা আমরা জানি। ক্ষতিপূরণের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের বিদ্যমান আইন অনুযায়ী সাকসেশন সার্টিফিকেট (উত্তরাধিকার সনদ) প্রয়োজন হবে। এই সার্টিফিকেট প্রমাণ করে যিনি নিহত হয়েছেন তার আইনগত উত্তরাধিকারী হচ্ছে অমুক ব্যক্তি।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের ইন্সুরেন্স কোম্পানি ইতিমধ্যে একজন আইনজীবীকে দায়িত্ব দিয়েছেন, তারা প্রত্যেক নিহত পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। এ বিষয়ে ইতিমধ্যে সবাইকে অবহিত করে খবরের কাগজে বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছে-কারো সঙ্গে যদি ইন্সুরেন্স কোম্পানির পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা না হয়ে থাকে তবে তারা যেন যোগাযোগ করেন।

তিনি আরো বলেন, ওয়ারসো কনভেনশন অনুযায়ী আমরা যতটা পরিমাপ করতে পেরেছি তা হলো প্রত্যেক নিহতের পরিবার ৫০ হাজার মার্কিন ডলারের কম পাবেন বলে আমরা মনে করি না, এরচেয়ে বেশিও পেতে পারেন। তাছাড়া আহতরা ক্ষতিপূরণ পাবেন। তবে তারা আহত হওয়ার ধরণ অনুযায়ী বিভিন্ন অঙ্কের ক্ষতিপূরণ পাবেন।

যাত্রীদের ক্ষতিপুরণের বিষয়টির প্রতি জোর দেওয়া হয়েছে জানিয়ে ইউএস বাংলার ইমরান আসিফ বলেন, ‘আমাদের এয়ারক্র্যাফ্টের ক্ষতিপূরণের টাকা এখন চাইলেই নিতে পারি, কিন্তু আমরা বলেছি যাত্রীদের ক্ষতিপূরণের টাকা না দেওয়া পর্যন্ত আমরা এয়ারক্র্যাফ্টের টাকা নেবো না।’

তিনি বলেন, সবাইকে একই সময়ের মধ্যে ক্ষতিপূরণের টাকা দেওয়া যাবে, এটা বলা যাচ্ছে না। কারণ প্রত্যেকটি কেস আলাদাভাবে হ্যান্ডেল করতে হচ্ছে। যারা মারা গেছেন তাদের পরিবার যখনই সাকসেশস সার্টিফিকেটের ব্যাপারটা সম্পন্ন করে আসবেন, ঠিক তখনই ইন্সুরেন্স কোম্পানি টাকা দিয়ে দেবে। সেখানে ইউএস-বাংলার মাঝখান দিয়ে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ বা ম্যানিপুলেশন করার কোনো সুযোগ নেই।

সংবাদ সম্মেলনে বিমান ও পর্যটন সচিব এসএম গোলাম ফারুকসহ মন্ত্রণালয়, সিভিল এভিয়েশন ও ইউএস বাংলার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

Print Friendly and PDF

আপনার মতামত দিন