সর্বশেষ খবর

   বালাগঞ্জে ভেজাল বিরোধী অভিযান    র‍্যাবের খাঁচায় সিলেটের ‘শীর্ষ সন্ত্রাসী’ সুধাংশু    বিশ্ব মেট্রোলজি দিবস উপলক্ষে সিলেটে আলোচনা সভা    জিন্দাবাজারে রিফাত এন্ড কোং’এ ২০ হাজার টাকা জরিমানা    মৌলভীবাজারে দুই ছাত্রলীগ কর্মী খুনের মামলার প্রধান আসামির আত্মসমর্পণ    সহকর্মীকে ‘হ্যান্ডসাম’ বলায় চাকরি হারালেন সংবাদ উপস্থাপিকা    প্রতিটি পোস্টে নজর রাখছে ১৫ হাজার ‘ফেসবুক পুলিশ’    মন্ত্রী-সচিবদের কেউ কেউ ফোন-ফ্যাক্সের দোকান খুলে বসতে পারেন: পার্থ    মিশিগান বিএনপির উদ্যোগে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত    সাকিবদের হারিয়ে ফাইনালে চেন্নাই    ‘মাদকবিরোধী অভিযানে মানুষের প্রশংসা বিএনপির ভালো লাগছে না’    বন্দুকযুদ্ধের পেছনে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য দেখছে বিএনপি    তুরস্কে ইসরাইলি পণ্য নিষিদ্ধ    মার্কেন্টাইল ব্যাংক ৩০০ কোটি টাকার বন্ড ছাড়ছে    খালেদার ৩ মামলায় জামিনের শুনানি বুধবার    বাগেরহাটে মনোনয়নপত্র নিলেন নায়ক শাকিল    ৭১তম কান উৎসবে বিজয়ী হলেন যারা    থাপ্পড় মেরে ১৩তম লালকার্ড    ১৫ জুনের আগেই কোচ পাচ্ছে টাইগাররা    ক্রিকইনফোর আইপিএল সেরা একাদশে নেই সাকিব


স্বাস্থ্য

আপনার ব্লাড গ্রুপ কি ‘ও’? তবে সাবধান

সিলেট বার্তা, ২০১৮-০৫-০৫ ১২:৩০:২৬

আপনার ব্লাড গ্রুপ কি ‘ও’? তবে একটু সাবধানে থাকুন। নয়া পরীক্ষা বলছে, কোনও দুর্ঘটনায় ও ব্লাড গ্রুপের মানুষজনের মৃত্যু বা পঙ্গু হওয়ার সম্ভবনা সবচেয়ে বেশি। সমীক্ষাটি চালিয়েছে জাপানের একটি সংস্থা। সমীক্ষা চালানো হয়েছে জাপানের ৯০০টি বিপদজনক রোগীর উপরে। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, ৯০০ জন বিপদজনক রোগীর মধ্যে ২৮ শতাংশ মানুষ মৃত্যু পথযাত্রী হয়েছে, যাদের ব্লাড গ্রুপ ও। সেখানে অন্য ব্লাড গ্রুপের মানুষের মৃত্যুর পরমাণ ১১ শতাংশ।

টোকিও মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল ইউনিভার্সিটি হাসপাতালের ডাক্তার ওয়াতারু তাকায়ামা জানিয়েছেন, ও ব্লাড গ্রুপের মানুষদের দুর্ঘটনায় রক্তক্ষরণের পরিমাণ বেশি হয়। ফলে তাদের মৃত্যুর সম্ভবনা বেশি থাকে। তিনি আরও জানিয়েছেন, কোন ব্লাড গ্রুপের ব্যক্তিরা দুর্ঘটনায়গ্রস্থ অবস্থায় কতটা আতঙ্কিত হন তাও সমীক্ষায় দেখা হয়েছে। ফলস্বরূপ দেখা গিয়েছে, ও ব্লাড গ্রুপের ব্যক্তিদের দুর্ঘটনায় আতঙ্কিত হওয়ার সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। ফলে রক্তক্ষরণও তাদেরই বেশি হয়। এছাড়া সমীক্ষায় উঠে এসেছে, ও ব্লাড গ্রুপের মানুষের রক্তে রক্তকে জমাট বাঁধানোর উপকরণ ইউলব্র্যান্ড ফ্যাক্টর (Willebrand factor) কম থাকে। ফলে রক্তক্ষরণ বেশই হয়। তাই বাড়ে মৃত্যুর আশঙ্কা।

বিষয়টি নিয়ে বেশি চিন্তিত না হয়ে, সঠিক মাত্রায় খাওয়া-দাওয়ার উপরে নজর দিতে বলেছেন ডাক্তার ওয়াতারু তাকায়ামা। এছাড়া বিষয়টি নিয়ে তাঁরাও যে পরীক্ষা-নিরিক্ষা চালাচ্ছেন তাও জানিয়েছেন তিনি। কথাতেই রয়েছে ‘সাবধানের মার নেই’। তাই আপনাদেরও বলা হচ্ছে, যারা ও পজিটিভ কিংবা নেগেটিভ ব্লাড গ্রুপের আওতায় পড়েন, নিজেদের একটু সাবধানে রাখুন, সুস্থ থাকুন।

শেয়ার করুন

Print Friendly and PDF

আপনার মতামত দিন