সর্বশেষ খবর

   বালাগঞ্জে ভেজাল বিরোধী অভিযান    র‍্যাবের খাঁচায় সিলেটের ‘শীর্ষ সন্ত্রাসী’ সুধাংশু    বিশ্ব মেট্রোলজি দিবস উপলক্ষে সিলেটে আলোচনা সভা    জিন্দাবাজারে রিফাত এন্ড কোং’এ ২০ হাজার টাকা জরিমানা    মৌলভীবাজারে দুই ছাত্রলীগ কর্মী খুনের মামলার প্রধান আসামির আত্মসমর্পণ    সহকর্মীকে ‘হ্যান্ডসাম’ বলায় চাকরি হারালেন সংবাদ উপস্থাপিকা    প্রতিটি পোস্টে নজর রাখছে ১৫ হাজার ‘ফেসবুক পুলিশ’    মন্ত্রী-সচিবদের কেউ কেউ ফোন-ফ্যাক্সের দোকান খুলে বসতে পারেন: পার্থ    মিশিগান বিএনপির উদ্যোগে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত    সাকিবদের হারিয়ে ফাইনালে চেন্নাই    ‘মাদকবিরোধী অভিযানে মানুষের প্রশংসা বিএনপির ভালো লাগছে না’    বন্দুকযুদ্ধের পেছনে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য দেখছে বিএনপি    তুরস্কে ইসরাইলি পণ্য নিষিদ্ধ    মার্কেন্টাইল ব্যাংক ৩০০ কোটি টাকার বন্ড ছাড়ছে    খালেদার ৩ মামলায় জামিনের শুনানি বুধবার    বাগেরহাটে মনোনয়নপত্র নিলেন নায়ক শাকিল    ৭১তম কান উৎসবে বিজয়ী হলেন যারা    থাপ্পড় মেরে ১৩তম লালকার্ড    ১৫ জুনের আগেই কোচ পাচ্ছে টাইগাররা    ক্রিকইনফোর আইপিএল সেরা একাদশে নেই সাকিব


রাজনীতি

স্যাটেলাইটের মালিকানা দুই ব্যক্তির: ফখরুল

সিলেট বার্তা, ২০১৮-০৫-১৩ ০২:৪১:২৮

মহাকাশে সদ্য উৎক্ষেপণ করা ‘বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট’-এর মালিকানা দুই ব্যক্তির কাছে চলে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার দুপুরে দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। গণতন্ত্র ও আইনের শাসন পুন:প্রতিষ্ঠা, বেগম খালেদা জিয়ারর সুচিকিৎসা-নিঃশর্ত মুক্তি এবং ডা. শামীউল আলম সুহানের উপর হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে প্রতিবাদ সভাটির আয়োজন করে ডক্টরস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব)।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেয়ার সময় সাংবাদিকরা, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ নিয়ে বিএনপি মহাসচিবের দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি বলেন, ‘ওটা আগে ঘুরুক, পৃথিবী পরিক্রমা করুক তারপর দেখা যাবে। যাই হোক এটারও মালিকানা চলে গেছে জানেনতো। স্যাটেলাইটের মালিকানাও চলে গেছে দুজন লোকের হাতে এবং সেখান থেকে আপনাকেও কিনে নিতে হবে। চুক্তি হচ্ছে অনেক। এই চুক্তি করার অধিকার তাদের কে দিয়েছে? আপনারতো পার্লামেন্টই নেই। পার্লামেন্টই তো নির্বাচিত নয়। যে চুক্তিই করেন না কেনো আপনি, সেই চুক্তি তো জনগণের চুক্তি নয়। আমি এ বিষয়ে খুব বেশি কিছু বলবো না। কারণ এ বিষয়টি ভালো করে দেখিনি। আগে দেখি চুক্তিগুলো কি হয়েছে।’

এ সময় মির্জা ফখরুল আরও বলেন, জাতীয় ঐক্য ছাড়া আমাদের কোনো উপায় নেই। গোটা মানুষকে এক করতে হবে। এক করে এই ভয়াবহ দানবকে সরাতে আমাদের কাজ করতে হবে। অবশ্যই অন্যান্য রাজনৈতিক দল, ধর্ম, বর্ণ সকলকে সঙ্গে নিয়েই এই দানবকে সরাতে হবে। মালয়েশিয়াতেও দেখা গেল এই ধরনের ঐক্য না হলে এটা খুব ডিফিকাল্ট। সেজন্য আমাদের জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি করতে হবে। জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি করার মধ্য দিয়েই এদের পরাজিত করতে হবে।

একটা রাষ্ট্রের সকল প্রতিষ্ঠানগুলো যখন ধ্বংস হয়ে যায় তখন সেটা আর রাষ্ট্র থাকে না। আজকে রাষ্ট্র সম্পূর্ণ অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে এবং সন্ত্রাসী রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন সাবেক এই প্রতিমন্ত্রী।

সভায় ড্যাবের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এবং বিএনপির স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম বাচ্চুর সঞ্চালনায় এবং বিএসএমএমইউ এর সাবেক প্রো-ভিসি অধ্যাপক ডা. আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফর উল্লাহ চৌধুরী, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সিরাজ উদ্দিন আহমেদ, আব্দুল কুদ্দুস, গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যক্ষ সেলিম ভূইয়া,ঢাবি’র সাদা দলের আহ্বায়ক আক্তার হোসেন প্রমুখ।

শেয়ার করুন

Print Friendly and PDF

আপনার মতামত দিন